সাইয়েদুল ইস্তেগফার বাংলা উচ্চারণ সহ

ইস্তেগফার অর্থ ক্ষমা প্রার্থনা করা, আর তাওবা হল আল্লাহর পথে ফিরে আসা। দুটি শব্দের অত্যন্ত অনুরূপ অর্থ রয়েছে। আমাদের সর্বদা আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। আমীন। আল্লাহ আমাদের সবাইকে মাফ করুন। তাই আজকের আলোচনাকে কেন্দ্র করে থাকবে ইস্তিগফারের ফজিলত এবং সাইয়েদুল ইস্তিগফার দোয়া ও নিয়ম তেলাওয়াত এবং সাইয়েদুল ইস্তেগফার বাংলা উচ্চারণ সহ pdf.

সাইয়েদুল ইস্তেগফার আরবি

اَللَّهُمَّ أَنْتَ رَبِّىْ لآ إِلهَ إلاَّ أَنْتَ خَلَقْتَنِىْ وَأَنَا عَبْدُكَ وَأَنَا عَلى عَهْدِكَ وَوَعْدِكَ مَا اسْتَطَعْتُ، أَعُوْذُبِكَ مِنْ شَرِّمَا صَنَعْتُ، أبُوْءُ لَكَ بِنِعْمَتِكَ عَلَىَّ وَأَبُوْءُ بِذَنْبِىْ فَاغْفِرْلِىْ، فَإِنَّهُ لاَيَغْفِرُ الذُّنُوْبَ إِلاَّ أَنْتَ

সাইয়েদুল ইস্তেগফার বাংলা উচ্চারণ

সাইয়েদুল ইস্তেগফার বাংলা উচ্চারণ নিচে দেওয়া হলোঃ

আল্লা-হুম্মা আনতা রব্বী লা ইলা-হা ইল্লা আনতা খালাক্বতানী, ওয়া আনা ‘আবদুকা ওয়া আনা ‘আলা আহদিকা ওয়া ওয়া‘দিকা মাসতাত্বা‘তু, আ‘ঊযুবিকা মিন শার্রি মা ছানা‘তু। আবূউ লাকা বিনি‘মাতিকা ‘আলাইয়া ওয়া আবূউ বিযাম্বী ফাগফিরলী ফাইন্নাহূ লা ইয়াগফিরুয্ যুনূবা ইল্লা আনতা।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার এর বাংলা অর্থ

হে আল্লাহ! হে প্রভু, তুমি আমার। তুমিই একমাত্র দেবতা। তুমি আমাকে সৃষ্টি করেছ বলেই আমি তোমার দাস। আমি আপনার প্রতি আমার অঙ্গীকার এবং বাধ্যবাধকতা রক্ষা করার জন্য আমার ক্ষমতার সবকিছু করব। আমি আমার কর্মের ক্রোধ থেকে আপনার কাছে আশ্রয় চাই। আমি আমার প্রতি আপনার অনুগ্রহ স্বীকার করি যতটা আমার দোষ। তাই আমাকে ক্ষমা করে দিন। কারণ তুমি ছাড়া আর কেউ পাপ ক্ষমা করে না।

সাইয়েদুল ইস্তেগফারের ফজিলত

সাইয়েদুল ইস্তেগফার বা শ্রেষ্ঠ ক্ষমা প্রার্থনা হলো একটি গুরুত্বপূর্ণ দোয়া যা মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত ফজিলতপূর্ণ। এই দোয়াটি পাঠ করলে আল্লাহ তা’আলা পূর্ববর্তী সকল গুনাহ ক্ষমা করে দেন।

আরো পড়ুনঃ  গোসলের ফরজ কয়টি

সাইয়েদুল ইস্তেগফারের ফজিলত সম্পর্কে অনেক হাদীস বর্ণিত হয়েছে। হযরত মুহাম্মদ (সা.) বলেছেন, “যে ব্যক্তি সাইয়েদুল ইস্তেগফার সকালে পাঠ করবে, সে যদি সন্ধ্যা হওয়ার আগে মারা যায় তবে সে জান্নাতে প্রবেশ করবে। আর যে ব্যক্তি সাইয়েদুল ইস্তেগফার সন্ধ্যায় পাঠ করবে, সে যদি সকাল হওয়ার আগে মারা যায় তবে সে জান্নাতে প্রবেশ করবে।” (আবু দাউদ, তিরমিযী, নাসায়ী, ইবনে মাজাহ)

সাইয়েদুল ইস্তেগফারের আরও কিছু ফজিলত হলো:

  • এই দোয়া পাঠ করলে আল্লাহ তা’আলা দুনিয়া ও আখিরাতে সাহায্য করেন।
  • এই দোয়া পাঠ করলে আল্লাহ তা’আলা বান্দার সকল অভাব ও দারিদ্র্য দূর করেন।
  • এই দোয়া পাঠ করলে আল্লাহ তা’আলা বান্দার সকল দুঃখ ও কষ্ট দূর করেন।
  • এই দোয়া পাঠ করলে আল্লাহ তা’আলা বান্দার সকল গুনাহ ক্ষমা করেন।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার ছবি

সাইয়েদুল ইস্তেগফার ছবি

সাইয়েদুল ইস্তেগফার pdf

pdf

সাইয়েদুল ইস্তেগফার এর ঘটনা ও ইতিহাস

সাইয়েদুল ইস্তেগফার হলো একটি আরবি দোয়া যা আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনার জন্য পড়া হয়। এটিকে “উপম ইস্তেগফার” বা “সর্বোত্তম ক্ষমা প্রার্থনা” বলা হয়। এই দোয়াটি ইসলামের নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর কাছে আল্লাহর কাছ থেকে দান করা হয়েছিল।

সাইয়েদুল ইস্তেগফারের ঘটনাটি ঘটেছিল যখন হযরত মুহাম্মদ (সা.) সাহাবাদের সাথে বসেছিলেন। হঠাৎ তিনি দুঃখিত হয়ে পড়েন এবং নিজের মাথা মাটিতে রাখেন। তারপর তিনি বলেন, “আমি একটি দোয়া শিখেছি যা যদি কেউ পাঠ করে, তাহলে আল্লাহ তার সমস্ত পাপ ক্ষমা করে দেবেন, এমনকি যদি সে যুদ্ধের ময়দান থেকে পালিয়ে আসে।”

সাহাবারা এই দোয়াটি শুনতে চান এবং হযরত মুহাম্মদ (সা.) তাদেরকে এটি শিখিয়ে দেন। সাইয়েদুল ইস্তেগফার হলো এই দোয়াটি।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার পড়ার অনেক ফযিলত রয়েছে। এটি পাঠ করলে আল্লাহ তাআলা পাপীকে ক্ষমা করেন, তার দুঃখ দূর করেন, তার জীবনকে সহজ করেন এবং তাকে জান্নাতের সুসংবাদ দেন।

আরো পড়ুনঃ  দোয়া কুনুত মুখস্ত করার সহজ পদ্ধতি

সাইয়েদুল ইস্তেগফার যে কোন সময় পড়া যায়। তবে বিশেষ করে জুমার দিন, ফজরের নামাজের পর, মাগরিবের নামাজের পর, এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পড়ার ফযিলত অনেক বেশি।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার হলো একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দোয়া। এটি পাঠ করলে একজন মুসলমানের জীবন অনেক সহজ হয়ে যাবে এবং সে আল্লাহর রহমত লাভ করবে।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার পড়ার নিয়ম

সাইয়েদুল ইস্তেগফার হলো একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ দোয়া যা আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনার জন্য পড়া হয়। এটি যে কোন সময় পড়া যায়, তবে বিশেষ করে জুমার দিন, ফজরের নামাজের পর, মাগরিবের নামাজের পর, এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পড়ার ফযিলত অনেক বেশি।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার পড়ার নিয়ম হলো:

১। প্রথমে আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করার জন্য “আউজুবিল্লাহি মিনাশ শাইতানি রজ্জিম” এবং “বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম” পড়তে হবে। ২। তারপর সাইয়েদুল ইস্তেগফারের আরবি বা বাংলা উচ্চারণ করতে হবে। ৩। দোয়া শেষে “আমিন” বলতে হবে।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার পড়ার সময় মনে মনে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইতে হবে এবং তাঁর কাছে আন্তরিকভাবে তওবা করতে হবে।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার কোন সুরার আয়াত

ইস্তিগফার সম্বন্ধে কোরআনে আছে, ‘তোমরা তোমাদের রবের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করো, নিশ্চয়ই তিনি মহাক্ষমাশীল ‘ (সুরা-২ বাকারা, আয়াত: ১৯৯)।

উপসংহার

আমি আশা করছি আপনি সাইয়েদুল ইস্তেগফার বাংলা উচ্চারণ এবং এর অর্থ জেনে গেছেন।

আরো পড়ুনঃ লা হাওলা ওয়ালা কুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ আলিউল আজিম অর্থ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top