জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

https://jobbd.org/%e0%a6%9c%e0%a6%97%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%a5-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%ad/

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তির জন্য আবেদন করতে হলে নিম্নলিখিত যোগ্যতাসমূহ পূরণ করতে হবে:

  • জাতীয়তা: বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতা: ২০২১ সালে এসএসসি/সমমান এবং ২০২৩ সালে এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • ন্যূনতম জিপিএ:
    • বিজ্ঞান শাখা (ইউনিট এ): এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) মোট জিপিএ ৮.০০ থাকতে হবে।
    • মানবিক শাখা (ইউনিট বি): এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) মোট জিপিএ ৭.০০ থাকতে হবে।
    • বাণিজ্য শাখা (ইউনিট সি): এসএসসি/সমমান ও এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় (৪র্থ বিষয়সহ) মোট জিপিএ ৭.৫০ থাকতে হবে।

বিশেষ যোগ্যতা:

  • উচ্চতর গণিত: বিজ্ঞান শাখায় ভর্তি হতে হলে এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় উচ্চতর গণিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • বাংলা ভাষা ও সাহিত্য: মানবিক শাখায় ভর্তি হতে হলে এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় বাংলা ভাষা ও সাহিত্য পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য: মানবিক শাখায় ভর্তি হতে হলে এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • বাণিজ্য শাখায় ভর্তি হতে হলে এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় বাংলা ভাষা ও সাহিত্য, ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য এবং হিসাববিজ্ঞান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষা:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা গুচ্ছভুক্ত ২০টি সাধারণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। এই পরীক্ষায় ৪টি ইউনিটে (বিজ্ঞান, মানবিক, বাণিজ্য ও কলা) ভর্তির জন্য পৃথক পৃথক প্রশ্নপত্র থাকে। পরীক্ষার নম্বর বিষয়ভিত্তিক ১০০ করে, মোট ৪০০।

আবেদন প্রক্রিয়া:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তির জন্য আবেদন অনলাইনে করতে হবে। আবেদন শুরু হয় সাধারণত আগস্ট মাসের মাঝামাঝি থেকে এবং শেষ হয় সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে। আবেদন ফি ৬০০ টাকা। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

ভর্তির ফল প্রকাশ:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তির ফল সাধারণত অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে প্রকাশিত হয়। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা অনলাইনে বা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে ফল দেখতে পারবেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

ভর্তির সময়সূচি:

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তির সময়সূচি সাধারণত অক্টোবর মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে শুরু হয় এবং নভেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহের মধ্যে শেষ হয়। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত শাখায় ভর্তি হতে হবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় Admission 2023

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ তারিখ

আরো পড়ুনঃ  ভারতের প্রথম শিক্ষা মন্ত্রীর নাম কি
পর্ব তারিখ বিষয়
আবেদন শুরু আগস্টের মাঝামাঝি অনলাইনে আবেদন শুরু
আবেদন শেষ সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ অনলাইনে আবেদন শেষ
ভর্তি পরীক্ষা অক্টোবরের দ্বিতীয় সপ্তাহ গুচ্ছভুক্ত ভর্তি পরীক্ষা
ফল প্রকাশ অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহ অনলাইনে ফল প্রকাশ
ভর্তি অক্টোবরের শেষ সপ্তাহ থেকে অনলাইনে ভর্তি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন

বিভাগ বিষয় নম্বর
বিজ্ঞান পদার্থবিজ্ঞান ১০০
রসায়ন ১০০
জীববিজ্ঞান ১০০
মানবিক বাংলা ১০০
ইংরেজি ১০০
ইতিহাস ১০০
বাণিজ্য হিসাববিজ্ঞান ১০০
ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা ১০০
অর্থনীতি ১০০

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য নিম্নলিখিত বিষয়গুলোতে মনোযোগ দিতে হবে:

  • পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের ধরন ও মানবন্টন সম্পর্কে ভালোভাবে ধারণা থাকা।
  • পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোর বিষয়বস্তু ভালোভাবে আয়ত্ত করা।
  • পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য ভালো মানের গাইডবুক ও প্রশ্নব্যাংক ব্যবহার করা।
  • নিয়মিত অনুশীলন করা এবং সময় ম্যানেজমেন্টের উপর গুরুত্ব দেওয়া।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার খরচ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার খরচ প্রতি সেমিস্টারে গড়ে প্রায় ২৫০০ থেকে ৩০০০ টাকা। এই খরচের মধ্যে রয়েছে:

  • টিউশন ফি: প্রতি সেমিস্টারে ৯০০ থেকে ১০০০ টাকা।
  • পরীক্ষার ফি: প্রতি সেমিস্টারে ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা।
  • শিক্ষার্থী কল্যাণ ফি: প্রতি সেমিস্টারে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা।
  • বিবিধ ফি: প্রতি সেমিস্টারে ১০০ থেকে ২০০ টাকা।

এছাড়াও, শিক্ষার্থীদের নিজস্ব খরচ বহন করতে হয়, যেমন:

  • বই ও অন্যান্য শিক্ষা উপকরণ: প্রতি সেমিস্টারে প্রায় ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকা।
  • মেসে থাকার খরচ: প্রতি মাসে প্রায় ২০০০ থেকে ৩০০০ টাকা।
  • খাবারের খরচ: প্রতিদিন প্রায় ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা।
  • পরিবহন খরচ: প্রতিদিন প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ টাকা।

অনুসন্ধান অনুযায়ী, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে এক বছরের পড়াশোনার খরচ প্রায় ১০,০০০ থেকে ১৫,০০০ টাকা। তবে, এটি শিক্ষার্থীর বিভাগ, মেসে থাকার অবস্থা, খাবারের ধরন, পরিবহন ব্যবস্থা ইত্যাদির উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হতে পারে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনার জন্য সরকার থেকে বিভিন্ন ধরনের বৃত্তি ও উপবৃত্তি প্রদান করা হয়। এই বৃত্তি ও উপবৃত্তির মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার খরচ বহন করা সহজ হয়।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় website

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের official website হলো:

https://jnu.ac.bd

এই ওয়েবসাইটে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল প্রকার তথ্য পাওয়া যাবে, যেমন:

  • বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ও পরিচিতি
  • বিভিন্ন বিভাগ ও অনুষদের তথ্য
  • ভর্তি সংক্রান্ত তথ্য ও গাইডলাইন
  • শিক্ষা কার্যক্রম ও পরীক্ষার সময়সূচি
  • ফলাফল প্রকাশ
  • বিভিন্ন নোটিশ ও ঘোষণা
  • অনলাইন আবেদন
  • ফি জমা
  • বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবাস ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা
  • বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগার ও কম্পিউটার ল্যাবের তথ্য
  • অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ তথ্য
আরো পড়ুনঃ  বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

এছাড়াও, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক পেজ এবং অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট থেকেও আপনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন তথ্য ও আপডেট পেতে পারেন।

আপনি যদি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে আরও কোনো তথ্য জানতে চান, তাহলে ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ পাঠান। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাবজেক্ট লিস্ট

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে নিম্নলিখিত বিভাগে অনার্স প্রোগ্রাম চালু রয়েছে:

বিজ্ঞান অনুষদ

  • ফার্মেসী
  • বায়োকেমিস্ট্রি
  • সিএসই
  • মাইক্রোবায়োলজি
  • জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং
  • রসায়ন
  • পদার্থবিজ্ঞান
  • গণিত
  • পরিসংখ্যান
  • উদ্ভিদবিজ্ঞান
  • প্রাণিবিদ্যা
  • মনোবিজ্ঞান
  • ভূগোল

মানবিক অনুষদ

  • আইন
  • অর্থনীতি
  • সাংবাদিকতা
  • লোকপ্রশাসন
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান
  • সমাজবিজ্ঞান
  • ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি
  • সমাজকর্ম
  • দর্শন
  • ইংরেজী
  • ইতিহাস
  • বাংলা
  • ইসলামিক স্টাডিজ
  • নৃবিজ্ঞান
  • ভূমি আইন
  • শিক্ষা ও গবেষণা
  • মডার্ন ল্যাংগুয়েজ

বাণিজ্য অনুষদ

  • মার্কেটিং
  • ম্যানেজমেন্ট
  • একাউন্টিং
  • ফিন্যান্স

চারুকলা অনুষদ

  • চারুকলা
  • ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন
  • নাট্যকলা
  • সংগীত

আইন অনুষদ

  • আইন

শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট

  • বিএড (প্রফেশনাল)
  • এমএড (প্রফেশনাল)

স্বাস্থ্য ও বিজ্ঞান অনুষদ

  • নার্সিং

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবজেক্ট চয়েজ লিস্ট

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সাবজেক্ট চয়েজ করার জন্য প্রতিটি বিভাগের নিজস্ব শর্তাবলী রয়েছে। সাধারণভাবে, সাবজেক্ট চয়েজ করার জন্য শিক্ষার্থীদের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে জিপিএ-৫ থাকতে হয়। এছাড়াও, বিভাগ ও সাবজেক্টভেদে নির্দিষ্ট কোর্স/বিষয়ে উত্তীর্ণ হওয়ার নিয়ম থাকতে পারে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবজেক্ট চয়েজ সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্যের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট বা ভর্তি বিজ্ঞপ্তি দেখুন।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার সদরঘাটে অবস্থিত একটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। ১৮৫৮ সালে একটি স্কুল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং ১৯৭৩ সালে এটি একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রূপান্তরিত হয়। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ঢাকার সদরঘাটে অবস্থিত। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসটি ঢাকার ২য় বৃহত্তম নদী বুড়িগঙ্গার তীরে অবস্থিত। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসটি প্রায় ৪০ একর জমির উপর অবস্থিত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস

১৮৫৮ সালে জগন্নাথ কলেজ নামে একটি স্কুল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯০৮ সালে এটি একটি দ্বিতীয় শ্রেণীর উচ্চ মাধ্যমিক কলেজে রূপান্তরিত হয়। ১৯১৯ সালে এটি একটি প্রথম শ্রেণীর উচ্চ মাধ্যমিক কলেজে রূপান্তরিত হয়। ১৯৭৩ সালে এটি একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রূপান্তরিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে ১০টি অনুষদে ৩৫টি বিভাগে স্নাতক, স্নাতকোত্তর এবং ডক্টরেট পর্যায়ে শিক্ষা কার্যক্রম চালু রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বর্তমানে প্রায় ২৫,০০০ শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সুযোগ-সুবিধা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা। বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে একটি সমৃদ্ধ গ্রন্থাগার, কম্পিউটার ল্যাব, খেলার মাঠ, ছাত্রাবাস, ছাত্রীনিবাস ইত্যাদি। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

আরো পড়ুনঃ  আগামীকাল কি বৃষ্টি হবে বাংলাদেশ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচিতি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যবাহী ও প্রথিতযশা বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়টি থেকে অনেক কৃতি ব্যক্তিত্ব সমাজে অবদান রেখেছেন।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নতুন ক্যাম্পাস

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ক্যাম্পাস বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার কেরানীগঞ্জে অবস্থিত। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে মন্ত্রিসভায় নতুন ক্যাম্পাস নির্মাণের অনুমোদন দেওয়া হয়। নতুন ক্যাম্পাসটি ২০০ একর জমির উপর নির্মিত হচ্ছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

নতুন ক্যাম্পাসে থাকবে একাডেমিক ভবন, প্রশাসনিক ভবন, গবেষণা কেন্দ্র, গ্রন্থাগার, কম্পিউটার ল্যাব, খেলার মাঠ, ছাত্রাবাস, ছাত্রীনিবাস ইত্যাদি। নতুন ক্যাম্পাসে আবাসিক হলের সংখ্যা হবে ১০টি।

নতুন ক্যাম্পাসের নির্মাণ কাজ ২০১৭ সালে শুরু হয়। ২০২০ সালের ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত প্রকল্পের মেয়াদ ছিল। তবে, নির্মাণ কাজ এখনও শেষ হয়নি। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

নতুন ক্যাম্পাসটি সম্পূর্ণ হলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসন সমস্যা অনেকাংশে সমাধান হবে। এছাড়াও, নতুন ক্যাম্পাস বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রমের জন্য আরও সুযোগ-সুবিধা প্রদান করবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

নতুন ক্যাম্পাসের কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য নিম্নরূপ:

  • অবস্থান: কেরানীগঞ্জ, ঢাকা
  • জমির পরিমাণ: ২০০ একর
  • নির্মাণ কাজের শুরু: ২০১৭ সালে
  • নির্মাণ কাজের সমাপ্তির সম্ভাব্য সময়: অজানা

নতুন ক্যাম্পাসের নির্মাণ কাজের অগ্রগতি নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে উদ্বেগ রয়েছে। শিক্ষার্থীরা চান যে নির্মাণ কাজ দ্রুত শেষ করে নতুন ক্যাম্পাসে স্থানান্তরিত হতে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি যোগ্যতা

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ইতিহাস

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ১৮৫৮ সালে শুরু হয়, যখন এটি ঢাকার সদরঘাটে একটি স্কুল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই স্কুলটি বিভিন্ন পর্যায়ে পরিবর্তন এবং উন্নয়নের মধ্য দিয়ে গিয়ে ২০০৫ সালে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়।

প্রাথমিক ইতিহাস (1858-1919):

  • 1858: ঢাকার সদরঘাটে ব্রাহ্ম স্কুল নামে প্রতিষ্ঠিত হয়।
  • 1872: ব্রাহ্ম স্কুলের নাম পরিবর্তন করে জগন্নাথ স্কুল করা হয়।
  • 1884: স্কুলটি একটি কলেজে রূপান্তরিত হয় এবং ঢাকা জগন্নাথ কলেজ নামকরণ করা হয়।
  • 1887: স্কুল ও কলেজ শাখা আলাদা হয়।

উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ (1919-1973):

  • 1919: কলেজটি একটি প্রথম শ্রেণীর উচ্চ মাধ্যমিক কলেজে রূপান্তরিত হয়।
  • 1949: কলেজটিতে আবার স্নাতক পর্যায়ে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়।
  • 1968: কলেজটি সরকারি করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর (1973-বর্তমান):

  • 1973: ঢাকা জগন্নাথ কলেজকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করা হয়।
  • 2005: জাতীয় সংসদে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন গৃহীত হয়।
  • 2016: কেরানীগঞ্জে নতুন ক্যাম্পাস নির্মাণের অনুমোদন দেওয়া হয়।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ অবদান:

  • বাংলা ভাষা আন্দোলন
  • শিক্ষা আন্দোলন
  • আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা
  • ৬ দফা ও ১১ দফার আন্দোলন
  • উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান ও মুক্তিযুদ্ধ
  • বিভিন্ন ক্ষেত্রে গবেষণা ও শিক্ষা কার্যক্রম

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমানে একটি স্বনামধন্য বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে পরিচিত এবং বাংলাদেশের উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে অবদান রাখছে।

আপনি যদি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়ে আরও জানতে চান, তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট বা অন্যান্য তথ্যসূত্র দেখতে পারেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top