কলকাতার রাজধানীর নাম কি

https://jobbd.org/%e0%a6%95%e0%a6%b2%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b0-%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%9c%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a7%80%e0%a6%b0-%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%ae-%e0%a6%95%e0%a6%bf/

কলকাতার রাজধানীর নাম কি

কলকাতার রাজধানীর নাম কলকাতা। কলকাতা পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী। কলকাতার সদর দপ্তর কলকাতায় এবং এটি কলকাতাতেই।

কলকাতা ভারতের প্রাক্তন রাজধানী ছিল। ১৭৭২ থেকে ১৯১১ সাল পর্যন্ত কলকাতা ভারতের রাজধানী ছিল। এরপর ভারতের রাজধানী দিল্লিতে স্থানান্তরিত হয়।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

কলকাতার পূর্ব নাম কি?

কলকাতার পূর্ব নাম ছিল সুতানুটি। সুতানুটি ছিল একটি ছোট গ্রাম, যা হুগলি নদীর তীরে অবস্থিত ছিল। ১৬৯০ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি সুতানুটি গ্রামে একটি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করে। এরপর ধীরে ধীরে সুতানুটি একটি বড় শহরে পরিণত হয়। ১৭৭২ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ভারতের রাজধানী সুতানুটিতে স্থানান্তরিত করে। এরপর সুতানুটির নাম পরিবর্তন করে কলকাতা রাখা হয়।

কলকাতার নামকরণ নিয়ে বিভিন্ন মতবাদ রয়েছে। একটি মতবাদ অনুসারে, কলকাতার নামকরণ করা হয় গঙ্গার কন্যা কালী দেবীর নামে। অন্য একটি মতবাদ অনুসারে, কলকাতার নামকরণ করা হয় কলিকাতা দেবীর নামে। কলিকাতা দেবী ছিলেন একটি স্থানীয় দেবী।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

আধুনিক বাংলায় কলকাতাকে কলিকাতা বা কলকাতা নামে ডাকা হয়। ইংরেজিতে কলকাতাকে Calcutta বা Kolkata নামে ডাকা হয়।

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানীর নাম কি?

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের রাজধানীর নাম হল কলকাতা। কলকাতা পশ্চিমবঙ্গের বৃহত্তম শহর এবং ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম শহর। কলকাতা হুগলি নদীর তীরে অবস্থিত। কলকাতা ভারতের প্রাক্তন রাজধানী ছিল। ১৭৭২ থেকে ১৯১১ সাল পর্যন্ত কলকাতা ভারতের রাজধানী ছিল। এরপর ভারতের রাজধানী দিল্লিতে স্থানান্তরিত হয়।

কলকাতা একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক, শিল্প, শিক্ষা, এবং সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। কলকাতায় অনেক বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কলকাতায় অনেক জাদুঘর, আর্ট গ্যালারি, এবং অন্যান্য সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কলকাতা একটি গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন কেন্দ্রও।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

আরো পড়ুনঃ  নেদারল্যান্ডস জাতীয় ফুটবল দল বনাম আর্জেন্টিনা এর লাইন-আপ

কলকাতার বর্তমান বয়স কত?

কলকাতার বয়স নির্ধারণ করা কঠিন। কারণ কলকাতার পূর্ব নাম ছিল সুতানুটি। সুতানুটি ছিল একটি ছোট গ্রাম, যা হুগলি নদীর তীরে অবস্থিত ছিল। ১৬৯০ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি সুতানুটি গ্রামে একটি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করে। এরপর ধীরে ধীরে সুতানুটি একটি বড় শহরে পরিণত হয়। ১৭৭২ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ভারতের রাজধানী সুতানুটিতে স্থানান্তরিত করে। এরপর সুতানুটির নাম পরিবর্তন করে কলকাতা রাখা হয়।

সুতানুটি গ্রামটি কত বছর আগে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল তা নিশ্চিতভাবে বলা যায় না। তবে অনুমান করা হয় যে সুতানুটি গ্রামটি ১৬০০ শতকের প্রথম দিকে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। তাহলে কলকাতার বয়স কমপক্ষে ৪০০ বছর।

তবে কলকাতা শহরের আধুনিক রূপটি ১৭৭২ সালের পর থেকে বিকশিত হতে শুরু করে। তাই কলকাতার আধুনিক বয়স বলা যেতে পারে ১৮০ বছর।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

সুতরাং, কলকাতার বয়স কমপক্ষে ৪০০ বছর এবং সর্বোচ্চ ১৮০ বছর।

কলকাতা জেলা কয়টি

বর্তমানে কলকাতা জেলা তিনটি ভাগে বিভক্ত। এই তিনটি অংশ হল:

  • কলকাতা পশ্চিম
  • কলকাতা পূর্ব
  • কলকাতা উত্তর

এই তিনটি অংশের প্রশাসনিক কার্যভার পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কলকাতা জেলা প্রশাসনের অধীনে রয়েছে।

এর আগে, কলকাতা জেলা একটিমাত্র ভাগে বিভক্ত ছিল। ২০১১ সালে পশ্চিমবঙ্গ সরকার কলকাতা জেলাকে তিনটি ভাগে বিভক্ত করে। এই বিভাজনের ফলে কলকাতা জেলার আয়তন হ্রাস পায় এবং প্রশাসনিক কার্যভার সহজতর হয়।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

কলকাতার ইতিহাস

কলকাতার ইতিহাস অনেক পুরনো। কলকাতার পূর্ব নাম ছিল সুতানুটি। সুতানুটি ছিল একটি ছোট গ্রাম, যা হুগলি নদীর তীরে অবস্থিত ছিল। ১৬৯০ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি সুতানুটি গ্রামে একটি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করে। এরপর ধীরে ধীরে সুতানুটি একটি বড় শহরে পরিণত হয়। ১৭৭২ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ভারতের রাজধানী সুতানুটিতে স্থানান্তরিত করে। এরপর সুতানুটির নাম পরিবর্তন করে কলকাতা রাখা হয়।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

সুতানুটির ইতিহাস

আরো পড়ুনঃ  ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি রেজাল্ট

সুতানুটি গ্রামটি ১৬০০ শতকের প্রথম দিকে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল বলে অনুমান করা হয়। সুতানুটি গ্রামটি হুগলি নদীর তীরে অবস্থিত ছিল। এই গ্রামটি কৃষি, বাণিজ্য, এবং শিল্পের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সুতানুটি গ্রামে অনেক দোকান, কারখানা, এবং অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিল।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির আগমন

১৬৯০ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি সুতানুটি গ্রামে একটি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করে। এই বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠার ফলে সুতানুটি গ্রাম একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য কেন্দ্রে পরিণত হয়। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি সুতানুটি গ্রামে অনেক কারখানা এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করে। এর ফলে সুতানুটি গ্রামে অনেক মানুষ বসবাস করতে শুরু করে।

কলকাতার উত্থান

১৭৫৬ সালে বাংলার নবাব সিরাজদৌল্লা কলকাতা অবরোধ করেন। এই অবরোধের ফলে কলকাতা শহর ধ্বংস হয়ে যায়। তবে ইংরেজরা পরের বছরই কলকাতা পুনরুদ্ধার করে। কলকাতা পুনরুদ্ধারের পর ইংরেজরা কলকাতা শহরের উন্নয়নে মনোযোগ দেয়। ইংরেজরা কলকাতায় অনেক নতুন রাস্তা, কলেজ, হাসপাতাল, এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করে। এর ফলে কলকাতা শহর একটি উন্নত শহরে পরিণত হয়।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

কলকাতার রাজধানীত্ব

১৭৭২ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি ভারতের রাজধানী সুতানুটিতে স্থানান্তরিত করে। এরপর সুতানুটির নাম পরিবর্তন করে কলকাতা রাখা হয়। কলকাতা ভারতের রাজধানী হওয়ার ফলে শহরটির গুরুত্ব আরও বৃদ্ধি পায়। কলকাতা শহর ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, এবং সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে পরিণত হয়।

কলকাতার আধুনিক রূপ

১৯ শতকে কলকাতা শহরের আধুনিক রূপ বিকশিত হতে শুরু করে। এই সময়ে কলকাতা শহরে অনেক নতুন ভবন, সেতু, এবং অন্যান্য অবকাঠামো নির্মিত হয়। কলকাতা শহর একটি আধুনিক শহরে পরিণত হয়।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

স্বাধীনতার পর কলকাতা

১৯৪৭ সালে ভারত স্বাধীনতা লাভ করে। স্বাধীনতার পর কলকাতা শহর ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর হিসেবে অব্যাহত থাকে। কলকাতা শহর ভারতের একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক, শিক্ষা, এবং সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হিসেবে বিরাজমান।

কলকাতার বর্তমান অবস্থা

বর্তমানে কলকাতা ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম শহর। কলকাতা শহর একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক, শিক্ষা, এবং সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। কলকাতা শহরে অনেক বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কলকাতা শহরে অনেক জাদুঘর, আর্ট গ্যালারি, এবং অন্যান্য সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কলকাতা একটি গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন কেন্দ্রও।

আরো পড়ুনঃ  পাকিস্তান বনাম নিউজিল্যান্ডের খেলা

কলকাতা কিসের জন্য বিখ্যাত

কলকাতা অনেক কিছুর জন্য বিখ্যাত। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল:

  • ঔপনিবেশিক স্থাপত্য: কলকাতা তার ঔপনিবেশিক স্থাপত্যের জন্য বিখ্যাত। কলকাতার রাস্তায় হাঁটতে হাঁটতে আপনি দেখতে পাবেন ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, সেন্ট পলস ক্যাথেড্রাল, রাইটার্স বিল্ডিং, এবং অন্যান্য অনেক ঐতিহাসিক ভবন, যেগুলির প্রতিটিই বিগত যুগের এক একটি জীবন্ত ইতিহাস।
  • সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য: কলকাতা তার সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের জন্য বিখ্যাত। কলকাতায় অনেক জাদুঘর, আর্ট গ্যালারি, এবং অন্যান্য সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কলকাতায় অনেক উৎসব উদযাপিত হয়, যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল দুর্গাপূজা, রবীন্দ্রজয়ন্তী, এবং সরস্বতী পূজা।
  • খাবার: কলকাতার খাবারের জন্য বিখ্যাত। কলকাতার রাস্তায় আপনি অনেক রকমের রান্না পাবেন। কলকাতার বিখ্যাত খাবারের মধ্যে রয়েছে রসগোল্লা, চপ, এবং কাটলেট।
  • ক্রিকেট: কলকাতা ক্রিকেটের জন্য বিখ্যাত। কলকাতায় ইডেন গার্ডেন্স নামে একটি বিখ্যাত ক্রিকেট স্টেডিয়াম রয়েছে। ইডেন গার্ডেন্সে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কলকাতা একটি প্রাণবন্ত এবং বৈচিত্র্যময় শহর। এই শহরটি তার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, এবং খাবারের জন্য বিশ্বজুড়ে বিখ্যাত।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

কলকাতার প্রতিষ্ঠাতা কে?

সাম্রাজ্যবাদী ঐতিহাসিকগণ ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির একজন প্রশাসক জব চার্নককে কলকাতার প্রতিষ্ঠাতা মনে করতেন। ১৬৯০ সালে জব চার্নক সুতানুটি, গোবিন্দপুর, এবং কলিকাতা নামে তিনটি গ্রামে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির একটি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করেন। এই বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠার ফলে সুতানুটি গ্রাম একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য কেন্দ্রে পরিণত হয়। ধীরে ধীরে সুতানুটি গ্রামে অনেক মানুষ বসবাস করতে শুরু করে।

তবে আধুনিক গবেষকগণ এই মত খণ্ডন করেছেন। তারা মনে করেন, কলকাতা সুতানুটি, গোবিন্দপুর, এবং কলিকাতা নামে তিনটি গ্রামে বসবাসকারী স্থানীয় মানুষের সহযোগিতায় গড়ে উঠেছে। জব চার্নক শুধুমাত্র এই তিনটি গ্রামে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির একটি বাণিজ্যকুঠি প্রতিষ্ঠা করেছেন।কলকাতার রাজধানীর নাম কি

সুতরাং, বলা যায় যে, কলকাতার প্রতিষ্ঠাতা একজন ব্যক্তি নয়। কলকাতা সুতানুটি, গোবিন্দপুর, এবং কলিকাতা নামে তিনটি গ্রামে বসবাসকারী স্থানীয় মানুষের সহযোগিতায় গড়ে উঠেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top