উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) বিভিন্ন ধরনের কোর্স অফার করে। এই কোর্সগুলিকে দুটি ভাগে ভাগ করা যেতে পারে:

  • স্নাতক পর্যায়ের কোর্স
  • স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্স

স্নাতক পর্যায়ের কোর্স

স্নাতক পর্যায়ের কোর্সগুলি আবার তিনটি ভাগে ভাগ করা যেতে পারে:

  • সাধারণ শিক্ষা কোর্স
  • বিভাগীয় শিক্ষা কোর্স
  • কারিগরি শিক্ষা কোর্স

সাধারণ শিক্ষা কোর্স

সাধারণ শিক্ষা কোর্সগুলিতে বিভিন্ন ধরনের সামাজিক বিজ্ঞান, মানবিক বিজ্ঞান, বিজ্ঞান, ইঞ্জিনিয়ারিং, ব্যবসায় প্রশাসন, কম্পিউটার বিজ্ঞান, আইন, কৃষি, স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ইত্যাদি বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকে। এই কোর্সগুলির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে।

বিভাগীয় শিক্ষা কোর্স

বিভাগীয় শিক্ষা কোর্সগুলি নির্দিষ্ট বিভাগের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে। এই কোর্সগুলির জন্য নির্দিষ্ট বিভাগের বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

কারিগরি শিক্ষা কোর্স

কারিগরি শিক্ষা কোর্সগুলি বিভিন্ন ধরনের কারিগরি বিষয়ের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে। এই কোর্সগুলির জন্য নির্দিষ্ট বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে।

স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্স

স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্সগুলি আবার দুটি ভাগে ভাগ করা যেতে পারে:

  • প্রকল্পভিত্তিক কোর্স
  • পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্স

প্রকল্পভিত্তিক কোর্স

প্রকল্পভিত্তিক কোর্সগুলিতে শিক্ষার্থীদের একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে একটি প্রকল্প তৈরি করতে হয়। এই কোর্সগুলির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।

পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্স

পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্সগুলিতে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট বিষয়ে নির্দিষ্ট সংখ্যক কোর্স সম্পন্ন করতে হয়। এই কোর্সগুলির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।

বাউবিতে অফার করা কিছু জনপ্রিয় কোর্সের মধ্যে রয়েছে:

  • স্নাতক পর্যায়ের কোর্স
    • বি.এ (অনার্স)
    • বি.এস.সি (অনার্স)
    • বি.বি.এ (অনার্স)
    • বি.সি.এ (অনার্স)
    • বি.এড
  • স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্স
    • এম.এ
    • এম.এস.সি
    • এম.বি.এ
    • এম.সি.এ
    • এম.এড

বাউবিতে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হবে। এই যোগ্যতাগুলি কোর্স অনুসারে আলাদা আলাদা হতে পারে। সাধারণভাবে, স্নাতক পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বাউবির কোর্সগুলির ফি তুলনামূলকভাবে কম। এই কোর্সগুলিতে অনলাইনে এবং অফলাইনে উভয়ভাবে পড়াশোনা করা যায়।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স কোর্স সমূহ ২০২২

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) ২০২২ সালে নিম্নলিখিত অনার্স কোর্সগুলি অফার করছে:

কলা ও মানবিক

  • বাংলা (অনার্স)
  • ইংরেজি (অনার্স)
  • ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি (অনার্স)
  • দর্শন (অনার্স)
  • সমাজবিজ্ঞান (অনার্স)
  • অর্থনীতি (অনার্স)
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান (অনার্স)
  • ইতিহাস (অনার্স)
  • ভূগোল (অনার্স)

বিজ্ঞান

  • পদার্থবিদ্যা (অনার্স)
  • রসায়ন (অনার্স)
  • গণিত (অনার্স)
  • জীববিজ্ঞান (অনার্স)
  • কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল (অনার্স)

ব্যবসায় প্রশাসন

  • বিবিএ (অনার্স)

আইন

  • বিএল (অনার্স)

কৃষি

  • কৃষি অর্থনীতি (অনার্স)
  • কৃষি উদ্যানবিদ্যা (অনার্স)
  • কৃষি প্রকৌশল (অনার্স)
  • কৃষি শিক্ষা (অনার্স)
  • কৃষি পণ্য প্রক্রিয়াকরণ (অনার্স)

স্বাস্থ্য বিজ্ঞান

  • নার্সিং (অনার্স)

কারিগরি

  • কম্পিউটার প্রোগ্রামিং (অনার্স)
  • ইলেকট্রনিক্স ও টেলিকমিউনিকেশন (অনার্স)
  • টেক্সটাইল (অনার্স)
  • অ্যাকাউন্টিং (অনার্স)
  • বিপণন (অনার্স)

বিবিএ (অনার্স) কোর্সটি বাংলা মাধ্যম ছাড়াও ইংরেজি মাধ্যমেও অফার করা হয়।

অনার্স কোর্সে ভর্তির যোগ্যতা

  • মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে।
  • বিবিএ (অনার্স) কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ বা জিপিএ ৩.০০ (৫.০০) থাকতে হবে।
  • আইন (অনার্স) কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ বা জিপিএ ৩.৫০ (৫.০০) থাকতে হবে।
  • কৃষি, স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও কারিগরি কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় বিভাগ বা জিপিএ ৩.০০ (৫.০০) থাকতে হবে এবং নির্দিষ্ট বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।

অনার্স কোর্সে ভর্তি প্রক্রিয়া

  • অনার্স কোর্সে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।
  • আবেদন ফি জমা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।
  • ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে।
  • তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।

অনার্স কোর্সের ফি

  • অনার্স কোর্সের ফি প্রতি সেমিস্টারে ৯,০০০ টাকা।
আরো পড়ুনঃ  আর্জেন্টিনা বনাম ফ্রান্স জাতীয় ফুটবল দল - এর পরিসংখ্যান

অনার্স কোর্সের মেয়াদ

  • অনার্স কোর্স সাধারণত চার বছর মেয়াদী।

অনার্স কোর্সের সুবিধা

  • বাউবির অনার্স কোর্সগুলিতে অনলাইনে এবং অফলাইনে উভয়ভাবে পড়াশোনা করা যায়।
  • বাউবির অনার্স কোর্সগুলির ফি তুলনামূলকভাবে কম।
  • বাউবির অনার্স কোর্সগুলিতে পাস করার হার তুলনামূলকভাবে বেশি।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২২-২০২৩

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) ভর্তি তথ্য ২০২২-২০২৩

ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

বাউবির ভর্তি বিজ্ঞপ্তি সাধারণত প্রতি বছর জুন-জুলাই মাসে প্রকাশিত হয়। ২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২৩ সালের ১০ জুন প্রকাশিত হয়। বিজ্ঞপ্তিটি বাউবির ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) এবং আঞ্চলিক/উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলোতে পাওয়া যায়।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ভর্তির যোগ্যতা

বাউবিতে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হবে। এই যোগ্যতাগুলি কোর্স অনুসারে আলাদা আলাদা হতে পারে। সাধারণভাবে, স্নাতক পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ভর্তি প্রক্রিয়া

বাউবিতে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন ফি জমা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ভর্তি ফি

বাউবির কোর্সগুলির ফি তুলনামূলকভাবে কম। স্নাতক পর্যায়ের কোর্সের ফি প্রতি সেমিস্টারে ৯,০০০ টাকা। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্সের ফি প্রতি সেমিস্টারে ১২,০০০ টাকা।

ভর্তির মেয়াদ

সাধারণত, স্নাতক পর্যায়ের কোর্স চার বছর মেয়াদী এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্স দুই বছর মেয়াদী।

ভর্তির সুবিধা

বাউবির কোর্সগুলিতে অনলাইনে এবং অফলাইনে উভয়ভাবে পড়াশোনা করা যায়। বাউবির কোর্সগুলির ফি তুলনামূলকভাবে কম। বাউবির কোর্সগুলিতে পাস করার হার তুলনামূলকভাবে বেশি।

২০২২-২০২৩ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু নির্দেশনা

  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি নির্দেশিকা ভালোভাবে পড়ে নিতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই আবেদন ফি জমা দিতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।
  • ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।

ভর্তি সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য শিক্ষার্থীরা বাউবির ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) বা আঞ্চলিক/উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলোতে যোগাযোগ করতে পারে।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স কোর্স সমূহ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) বিভিন্ন ধরনের মাস্টার্স কোর্স অফার করে। এই কোর্সগুলিকে দুটি ভাগে ভাগ করা যেতে পারে:

  • প্রকল্পভিত্তিক কোর্স
  • পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্স

প্রকল্পভিত্তিক কোর্স

প্রকল্পভিত্তিক কোর্সগুলিতে শিক্ষার্থীদের একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে একটি প্রকল্প তৈরি করতে হয়। এই কোর্সগুলির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।

পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্স

পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্সগুলিতে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট বিষয়ে নির্দিষ্ট সংখ্যক কোর্স সম্পন্ন করতে হয়। এই কোর্সগুলির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।

বাউবিতে অফার করা কিছু জনপ্রিয় মাস্টার্স কোর্সের মধ্যে রয়েছে:

প্রকল্পভিত্তিক কোর্স

  • এম.এ (বাংলা ভাষা ও সাহিত্য)
  • এম.এ (ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য)
  • এম.এ (ইসলামী ইতিহাস ও সংস্কৃতি)
  • এম.এ (দর্শন)
  • এম.এ (সমাজবিজ্ঞান)
  • এম.এ (অর্থনীতি)
  • এম.এ (রাষ্ট্রবিজ্ঞান)
  • এম.এ (ইতিহাস)
  • এম.এ (ভূগোল)

পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্স

  • এম.এস.সি (পদার্থবিদ্যা)
  • এম.এস.সি (রসায়ন)
  • এম.এস.সি (গণিত)
  • এম.এস.সি (জীববিজ্ঞান)
  • এম.এস.সি (কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল)
  • এম.বি.এ (ব্যবস্থাপনা)
  • এম.বি.এ (মার্কেটিং)
  • এম.বি.এ (অ্যাকাউন্টিং)

মাস্টার্স কোর্সে ভর্তির যোগ্যতা

  • স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।
  • প্রকল্পভিত্তিক কোর্সে ভর্তির জন্য ন্যূনতম দ্বিতীয় শ্রেণি বা জিপিএ ৩.০০ (৫.০০) থাকতে হবে।
  • পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্সে ভর্তির জন্য ন্যূনতম দ্বিতীয় শ্রেণি বা জিপিএ ৩.৫০ (৫.০০) থাকতে হবে।

মাস্টার্স কোর্সে ভর্তি প্রক্রিয়া

  • মাস্টার্স কোর্সে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে।
  • আবেদন ফি জমা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।
  • ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে।
  • তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।

মাস্টার্স কোর্সের ফি

  • প্রকল্পভিত্তিক কোর্সের ফি প্রতি সেমিস্টারে ১৬,০০০ টাকা।
  • পাঠ্যক্রমভিত্তিক কোর্সের ফি প্রতি সেমিস্টারে ১২,০০০ টাকা।

মাস্টার্স কোর্সের মেয়াদ

  • মাস্টার্স কোর্স সাধারণত দুই বছর মেয়াদী।

মাস্টার্স কোর্সের সুবিধা

  • বাউবির মাস্টার্স কোর্সগুলিতে অনলাইনে এবং অফলাইনে উভয়ভাবে পড়াশোনা করা যায়।
  • বাউবির মাস্টার্স কোর্সগুলির ফি তুলনামূলকভাবে কম।
  • বাউবির মাস্টার্স কোর্সগুলিতে পাস করার হার তুলনামূলকভাবে বেশি।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) ভর্তি তথ্য ২০২৩-২০২৪

ভর্তি বিজ্ঞপ্তি

বাউবির ভর্তি বিজ্ঞপ্তি সাধারণত প্রতি বছর জুন-জুলাই মাসে প্রকাশিত হয়। ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২৩ সালের ১০ জুন প্রকাশিত হয়। বিজ্ঞপ্তিটি বাউবির ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) এবং আঞ্চলিক/উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলোতে পাওয়া যায়।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

আরো পড়ুনঃ  আমেনা নামের ইসলামিক অর্থ কি

ভর্তির যোগ্যতা

বাউবিতে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হবে। এই যোগ্যতাগুলি কোর্স অনুসারে আলাদা আলাদা হতে পারে। সাধারণভাবে, স্নাতক পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া

বাউবিতে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন ফি জমা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ভর্তি ফি

বাউবির কোর্সগুলির ফি তুলনামূলকভাবে কম। স্নাতক পর্যায়ের কোর্সের ফি প্রতি সেমিস্টারে ৯,০০০ টাকা। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্সের ফি প্রতি সেমিস্টারে ১২,০০০ টাকা।

ভর্তির মেয়াদ

সাধারণত, স্নাতক পর্যায়ের কোর্স চার বছর মেয়াদী এবং স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্স দুই বছর মেয়াদী।

ভর্তির সুবিধা

বাউবির কোর্সগুলিতে অনলাইনে এবং অফলাইনে উভয়ভাবে পড়াশোনা করা যায়। বাউবির কোর্সগুলির ফি তুলনামূলকভাবে কম। বাউবির কোর্সগুলিতে পাস করার হার তুলনামূলকভাবে বেশি।

২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু নির্দেশনা

  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি নির্দেশিকা ভালোভাবে পড়ে নিতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই আবেদন ফি জমা দিতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।
  • ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের অবশ্যই ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।

ভর্তি সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য শিক্ষার্থীরা বাউবির ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) বা আঞ্চলিক/উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রগুলোতে যোগাযোগ করতে পারে।

২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ তারিখ

  • আবেদন শুরুর তারিখ: ২০২৩ সালের ১০ জুন
  • আবেদন শেষের তারিখ: ২০২৩ সালের ৩১ জুলাই
  • ভর্তি পরীক্ষার তারিখ: ২০২৩ সালের ২১ আগস্ট
  • ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ: ২০২৩ সালের ৩০ আগস্ট
  • ভর্তি নিশ্চয়ন শুরুর তারিখ: ২০২৩ সালের ৩১ আগস্ট
  • ভর্তি নিশ্চয়ন শেষের তারিখ: ২০২৩ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার নিয়ম

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার নিয়ম

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) বাংলাদেশের একটি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়টিতে স্নাতক, স্নাতকোত্তর, ডিপ্লোমা এবং সার্টিফিকেট কোর্স অফার করা হয়। বাউবিতে পড়ার জন্য শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হয় এবং নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হয়।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ভর্তির যোগ্যতা

বাউবিতে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হয়। এই যোগ্যতাগুলি কোর্স অনুসারে আলাদা আলাদা হতে পারে। সাধারণভাবে, স্নাতক পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া বা সমমানের যোগ্যতা থাকতে হবে। স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্সে ভর্তির জন্য স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ভর্তি প্রক্রিয়া

বাউবিতে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন ফি জমা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

পড়াশোনার নিয়ম

বাউবিতে পড়াশোনার নিয়মগুলি সাধারণত নিম্নরূপ:

  • শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট কোর্সের জন্য নিয়মিত ক্লাস করতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট কোর্সের জন্য পরীক্ষা দিতে হবে।
  • শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট কোর্সের জন্য প্রয়োজনীয় গ্রেড অর্জন করতে হবে।

ক্লাস

বাউবির ক্লাসগুলি সাধারণত সপ্তাহান্তে অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষার্থীরা তাদের পছন্দ অনুসারে যেকোনো আঞ্চলিক বা উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রে ক্লাস করতে পারে।

পরীক্ষা

বাউবির পরীক্ষাগুলি সাধারণত প্রতি বছর জানুয়ারী এবং জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট কোর্সের জন্য পরীক্ষা দিতে হবে। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে শিক্ষার্থীরা পরবর্তী কোর্সে অগ্রসর হতে পারে।

গ্রেডিং সিস্টেম

বাউবিতে গ্রেডিং সিস্টেমটি নিম্নরূপ:

  • A+: 90-100
  • A: 80-89
  • B+: 70-79
  • B: 60-69
  • C+: 50-59
  • C: 40-49
  • D: 30-39
  • E: 0-29

সফলতার হার

বাউবিতে সফলতার হার তুলনামূলকভাবে বেশি। ২০২৩ সালের স্নাতক পর্যায়ের পরীক্ষায় ৯১% শিক্ষার্থী পাস করে।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুবিধা

  • অনলাইন এবং অফলাইনে পড়াশোনা করা যায়।
  • ফি তুলনামূলকভাবে কম।
  • পাস করার হার তুলনামূলকভাবে বেশি।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার অসুবিধা

  • ক্লাসগুলি সাধারণত সপ্তাহান্তে অনুষ্ঠিত হয়।
  • পরীক্ষাগুলি সাধারণত প্রতি বছর দুবার অনুষ্ঠিত হয়।
আরো পড়ুনঃ  আব্দুল্লাহ আল জুবায়ের নামের অর্থ কি

উপসংহার

বাউবিতে পড়ার সুবিধাগুলি অনেক। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন এবং অফলাইনে পড়াশোনা করা যায়। ফি তুলনামূলকভাবে কম। পাস করার হার তুলনামূলকভাবে বেশি। তবে, ক্লাসগুলি সাধারণত সপ্তাহান্তে অনুষ্ঠিত হয় এবং পরীক্ষাগুলি সাধারণত প্রতি বছর দুবার অনুষ্ঠিত হয়।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটের মূল্য

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটের মূল্য

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) থেকে প্রাপ্ত ডিগ্রি এবং সার্টিফিকেটগুলি বাংলাদেশের সরকারীভাবে স্বীকৃত। এই ডিগ্রি এবং সার্টিফিকেটগুলি বিভিন্ন সরকারি চাকরিতে আবেদনের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বাউবি থেকে প্রাপ্ত ডিগ্রি এবং সার্টিফিকেটগুলির মূল্য নির্ভর করে বিভিন্ন কারণের উপর, যেমন:

  • ডিগ্রি বা সার্টিফিকেটের স্তর: স্নাতক ডিগ্রির চেয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রির মূল্য বেশি।
  • ডিগ্রি বা সার্টিফিকেটের বিষয়: কিছু বিষয়ের ডিগ্রি বা সার্টিফিকেটের চাহিদা বেশি, যেমন প্রকৌশল, মেডিসিন, ব্যবসায় প্রশাসন ইত্যাদি।
  • ডিগ্রি বা সার্টিফিকেটের ধারকের অভিজ্ঞতা: একজন অভিজ্ঞ কর্মীর ডিগ্রি বা সার্টিফিকেটের মূল্য একজন অপেক্ষাকৃত কম অভিজ্ঞ কর্মীর ডিগ্রি বা সার্টিফিকেটের চেয়ে বেশি।

সাধারণভাবে, বাউবি থেকে প্রাপ্ত ডিগ্রি এবং সার্টিফিকেটগুলির মূল্য যথেষ্ট ভালো। এই ডিগ্রি এবং সার্টিফিকেটগুলি একজন শিক্ষার্থীর ক্যারিয়ারের জন্য একটি ভাল ভিত্তি প্রদান করতে পারে।

বাংলাদেশের কিছু সরকারি চাকরিতে বাউবির ডিগ্রি এবং সার্টিফিকেটগুলির ব্যবহার:

  • শিক্ষকতা: বাউবির স্নাতক ডিগ্রিধারীরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং কলেজ পর্যায়ে শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করতে পারেন।
  • প্রশাসন: বাউবির স্নাতক ডিগ্রিধারীরা বিভিন্ন সরকারি প্রশাসনিক পদে যোগদান করতে পারেন।
  • বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি: বাউবির স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীরা বিভিন্ন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিভিত্তিক পদে যোগদান করতে পারেন।
  • ব্যবসায় প্রশাসন: বাউবির স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীরা বিভিন্ন ব্যবসায় প্রশাসনভিত্তিক পদে যোগদান করতে পারেন।

বাংলাদেশের কিছু বেসরকারি চাকরিতে বাউবির ডিগ্রি এবং সার্টিফিকেটগুলির ব্যবহার:

  • শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: বাউবির স্নাতক ডিগ্রিধারীরা বেসরকারি স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করতে পারেন।
  • প্রশাসন: বাউবির স্নাতক ডিগ্রিধারীরা বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রশাসনিক পদে যোগদান করতে পারেন।
  • বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি: বাউবির স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীরা বিভিন্ন বেসরকারি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠানে যোগদান করতে পারেন।
  • ব্যবসায় প্রশাসন: বাউবির স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারীরা বিভিন্ন বেসরকারি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে যোগদান করতে পারেন।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি তথ্য ২০২৩-২০২৪

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি তথ্য ২০২৩-২০২৪

ভর্তির যোগ্যতা

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীদের নিম্নলিখিত যোগ্যতা পূরণ করতে হবে:

  • মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় পৃথকভাবে ৫০% নম্বর করে দ্বিতীয় বিভাগ অথবা জিপিএ ৩.৫০ (৫.০০ এর মধ্যে) থাকতে হবে।
  • সকল শাখার শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

ভর্তি প্রক্রিয়া

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন ফি জমা দেওয়ার পর শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। তালিকাভুক্ত শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে ভর্তি নিশ্চয়ন করতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষা

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের ভর্তি পরীক্ষা সাধারণত প্রতি বছর আগস্ট মাসে অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষাটি দুই ঘন্টা স্থায়ী হয় এবং এটিতে মোট ১০০ নম্বরের প্রশ্ন থাকে। পরীক্ষায় বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ বিজ্ঞান এবং সাধারণ জ্ঞান থেকে প্রশ্ন করা হয়।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ভর্তি ফি

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের ভর্তি ফি ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে ৭০০ টাকা।

ক্লাস

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের ক্লাস সাধারণত সপ্তাহান্তে অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষার্থীরা তাদের পছন্দ অনুসারে যেকোনো আঞ্চলিক বা উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রে ক্লাস করতে পারে।

পরীক্ষা

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের পরীক্ষাগুলি সাধারণত প্রতি বছর জানুয়ারী এবং জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট কোর্সের জন্য পরীক্ষা দিতে হবে। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে শিক্ষার্থীরা পরবর্তী কোর্সে অগ্রসর হতে পারে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

গ্রেডিং সিস্টেম

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের গ্রেডিং সিস্টেম নিম্নরূপ:

  • A+: 90-100
  • A: 80-89
  • B+: 70-79
  • B: 60-69
  • C+: 50-59
  • C: 40-49
  • D: 30-39
  • E: 0-29

সফলতার হার

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের সফলতার হার তুলনামূলকভাবে বেশি। ২০২২ সালের অনার্স প্রোগ্রামের পরীক্ষায় ৯১% শিক্ষার্থী পাস করে।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের সুবিধা

  • অনলাইন এবং অফলাইনে পড়াশোনা করা যায়।
  • ফি তুলনামূলকভাবে কম।
  • পাস করার হার তুলনামূলকভাবে বেশি।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রামের অসুবিধা

  • ক্লাসগুলি সাধারণত সপ্তাহান্তে অনুষ্ঠিত হয়।
  • পরীক্ষাগুলি সাধারণত প্রতি বছর দুবার অনুষ্ঠিত হয়।

উপসংহার

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স প্রোগ্রাম একটি ভালো সুযোগ যা শিক্ষার্থীদের দূরশিক্ষণের মাধ্যমে একটি মানসম্মত শিক্ষা অর্জনের সুযোগ করে দেয়। এই প্রোগ্রামে ভর্তি হতে হলে শিক্ষার্থীদের নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হবে এবং নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হবে।উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top