প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইন আবেদন

প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইন আবেদনের নিয়মাবলী, আবেদনের মানদণ্ড এবং প্রতিবন্ধী ভাতা আইন সম্পর্কে বিস্তৃত তথ্য সম্পর্কে জানুন। প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইনে আবেদন করার জন্য নিম্নলিখিত ধাপগুলি অনুসরণ করুন:

১. সমাজসেবা অধিদফতরের ওয়েবসাইট https://mis.bhata.gov.bd/ এ যান।

প্রতিবন্ধী ভাতা

২. “অনলাইন আবেদন” ট্যাবে ক্লিক করুন।

প্রতিবন্ধী ভাতা 2

৩. “নতুন আবেদনকারী” নির্বাচন করুন।

প্রতিবন্ধী ভাতা 2

৪. আপনার ব্যক্তিগত তথ্য, জাতীয় পরিচয় নম্বর, জন্মনিবন্ধন নম্বর, আবেদনকারীর ধরন, প্রতিবন্ধীর ধরন, নমিনীর তথ্য ইত্যাদি পূরণ করুন।

প্রতিবন্ধী ভাতা 4

৫. আপনার স্বাক্ষর এবং পাসপোর্ট সাইজের ছবি আপলোড করুন।

প্রতিবন্ধী ভাতা 5

৬. “পরবর্তী” বাটনে ক্লিক করুন।

প্রতিবন্ধী ভাতা 6

৭. আপনার আবেদনটি সঠিকভাবে পূরণ হয়েছে কিনা তা যাচাই করুন।

৮. “সাবমিট” বাটনে ক্লিক করুন।

আপনার আবেদন সফলভাবে জমা হলে, একটি নিশ্চিতকরণ বার্তা আপনার ইমেল এবং মোবাইলে পাঠানো হবে।

প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইন আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

  • আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় নম্বর বা জন্মনিবন্ধন নম্বরের কপি।
  • আবেদনকারীর ছবি।
  • নমিনীর তথ্য (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।
  • প্রতিবন্ধী ব্যক্তির প্রতিবন্ধীতা শনাক্তকরণ সনদ।
  • প্রতিবন্ধী ব্যক্তির আয়ের কোন উৎস নেই এমন সনদ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)।

অনলাইনে আবেদন করার পাশাপাশি আপনি উপজেলা/শহর সমাজসেবা কার্যালয়েও প্রতিবন্ধী ভাতার জন্য আবেদন করতে পারেন।

প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইন আবেদনের জন্য কিছু টিপস:

  • আপনার ব্যক্তিগত তথ্য এবং জাতীয় পরিচয় নম্বর বা জন্মনিবন্ধন নম্বর সঠিকভাবে পূরণ করুন।
  • আপনার আবেদনটি সঠিকভাবে পূরণ হয়েছে কিনা তা যাচাই করুন।
  • আপনার আবেদন জমা দেওয়ার আগে আপনার সমস্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহ করুন।

প্রতিবন্ধী ভাতা আবেদন ফরম pdf

প্রতিবন্ধী ভাতা আবেদন ফরম বাংলাদেশ সমাজসেবা অধিদপ্তর থেকে পাওয়া যাবে। এই ফরমটি অনলাইনেও পাওয়া যায়। অনলাইনে আবেদন করতে হলে সমাজসেবা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন ফরমটি পূরণ করে জমা দিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  কওমি মাদ্রাসার সিলেবাস

pdf

প্রতিবন্ধী ভাতার জন্য আবেদনের যোগ্যতা

প্রতিবন্ধী ভাতার জন্য আবেদনের যোগ্যতা নিম্নরূপ:

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
  • আবেদনকারীর বয়স ১৮ বছর বা তার বেশি হতে হবে।
  • আবেদনকারীর শারীরিক বা মানসিক প্রতিবন্ধী হতে হবে।
  • আবেদনকারীর প্রতিবন্ধীর ধরন এবং তীব্রতার উপর ভিত্তি করে ভাতার পরিমাণ নির্ধারিত হয়।

প্রতিবন্ধী ভাতার জন্য আবেদনের জন্য নিম্নলিখিত কাগজপত্র প্রয়োজন:

  • আবেদনপত্র
  • সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • জন্ম নিবন্ধন বা নাগরিকত্বের সনদপত্র
  • প্রতিবন্ধী সনদপত্র
  • আয়ের সনদপত্র (যদি প্রযোজ্য হয়)

প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইন আবেদনের জন্য আবেদনপত্র সমাজসেবা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা যাবে। আবেদনপত্রটি পূরণ করে সমাজসেবা অধিদপ্তরের আঞ্চলিক অফিসে জমা দিতে হবে।

প্রতিবন্ধী ভাতা কয় মাস পর পর দেয়?

বাংলাদেশ সরকার প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইন আবেদন ব্যক্তিদের জন্য প্রতি মাসে ৮৫০ টাকা হারে ভাতা প্রদান করে। অর্থাৎ, প্রতিবন্ধী ভাতা প্রতি মাসে একবার প্রদান করা হয়।

আগামী ২০২৩-২৪ অর্থবছরে প্রতিবন্ধী ভাতাভোগীর সংখ্যা ২৯ লক্ষ জন। চলতি অর্থবছরে প্রতিবন্ধী ভাতা কার্যক্রম খাতে মোট বরাদ্দের পরিমান ২৯৭৮.৭১ কোটি টাকা।

সমাজসেবা অধিদপ্তর প্রতিবন্ধী ভাতা আবেদন

সমাজসেবা অধিদপ্তর প্রতিবন্ধী ভাতা আবেদন করার জন্য, নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন:

  1. অনলাইনে আবেদন করুন। আপনি সমাজসেবা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে গিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে পারেন। আবেদন ফর্ম পূরণের সময়, আপনাকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য, প্রতিবন্ধিতার ধরন এবং আয়ের উত্স সহ বিভিন্ন তথ্য প্রদান করতে হবে।
  2. আপনার উপজেলা/শহর সমাজসেবা কার্যালয়ে আবেদন করুন। আপনি আপনার উপজেলা/শহর সমাজসেবা কার্যালয়ে গিয়েও আবেদন করতে পারেন। আবেদন করার সময়, আপনাকে আবেদন ফর্ম পূরণ করতে হবে এবং প্রয়োজনীয় নথিপত্র জমা দিতে হবে।

অনলাইনে আবেদন করার জন্য, নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন:

  1. সমাজসেবা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে যান।
  2. “অনলাইন আবেদন” ট্যাবে ক্লিক করুন।
  3. “প্রতিবন্ধী ভাতা” নির্বাচন করুন।
  4. আবেদন ফর্ম পূরণ করুন।
  5. আপনার ছবি আপলোড করুন।
  6. আপনার স্বাক্ষর আপলোড করুন।
  7. “সাবমিট” বোতাম ক্লিক করুন।
আরো পড়ুনঃ  বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি কে ছিলেন

প্রতিবন্ধী ভাতা প্রাপ্তির অযোগ্যতা

প্রতিবন্ধী ভাতা অনলাইন আবেদন কিছু কারণে নাও করতে পারেন। বাংলাদেশ সরকারের সমাজসেবা অধিদফতর প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য মাসিক ভাতা প্রদান করে থাকে। এই ভাতা পেতে হলে একজন ব্যক্তিকে নিম্নলিখিত যোগ্যতাগুলো পূরণ করতে হবে:

  • প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩ অনুসারে প্রতিবন্ধী হতে হবে।
  • আর্থ-সামাজিক অবস্থা অসচ্ছল হতে হবে।

এছাড়াও, নিম্নলিখিত ব্যক্তিরা প্রতিবন্ধী ভাতা প্রাপ্তির অযোগ্য:

  • যারা অন্য কোনো সরকারী বা বেসরকারি ভাতা বা উপবৃত্তি পাচ্ছেন।
  • যারা সরকারি চাকরি বা কোনো বেসরকারি চাকরি করেন বা ব্যবসা করেন।
  • যারা সম্পত্তির মালিক।
  • যারা বিদেশে থাকেন।

আরো পড়ুনঃ পিজি হাসপাতালের ডাক্তারদের তালিকা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top