বেগুন ইংরেজি কি

https://jobbd.org/%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%97%e0%a7%81%e0%a6%a8-%e0%a6%87%e0%a6%82%e0%a6%b0%e0%a7%87%e0%a6%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%95%e0%a6%bf/

বেগুন ইংরেজি কি

বেগুন ইংরেজিতে Eggplant নামে পরিচিত। এটি একটি বর্ষজীবী ভেষজ উদ্ভিদ যা Solanaceae পরিবারের অন্তর্ভুক্ত। এটি একটি ফসল যা তার ফলের জন্য উত্থিত হয়, যা সাধারণত রান্না করা হয় এবং খাওয়া হয়। বেগুন বিভিন্ন রঙে পাওয়া যায়, যার মধ্যে রয়েছে বেগুনী, সবুজ, সাদা এবং হলুদ।

বেগুন একটি পুষ্টিকর খাবার যা ভিটামিন সি, পটাসিয়াম এবং ফাইবার সমৃদ্ধ। এটি প্রোটিন এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টেরও একটি ভাল উৎস। বেগুন বিভিন্ন ধরণের খাবারে ব্যবহার করা যেতে পারে, যার মধ্যে রয়েছে স্যুপ, স্ট্যু, তরকারি, সালাদ এবং ডিপ।বেগুন ইংরেজি কি

ইংল্যান্ডে বেগুন কে কি বলা হয়

ইংল্যান্ডে বেগুনকে aubergine বলা হয়। এটি একটি ফরাসি শব্দ যা তুর্কি শব্দ badinjan থেকে এসেছে। Aubergine শব্দটি ১৬ শতকের মধ্যে ইংরেজি ভাষায় প্রবেশ করেছিল।

ইংল্যান্ডে বেগুনকে eggplant নামেও ডাকা হয়, তবে এই শব্দটি কম ব্যবহৃত হয়। Eggplant শব্দটি ১৮ শতকের মধ্যে ইংরেজি ভাষায় প্রবেশ করেছিল। এই শব্দটি বেগুনের বাইরের ত্বকের সাদা, ডিমের মতো চেহারার কারণে দেওয়া হয়েছিল।বেগুন ইংরেজি কি

সুতরাং, ইংল্যান্ডে বেগুনকে aubergine বা eggplant বলা যেতে পারে।

বেগুনের স্বাদ কি ভালো

বেগুনের স্বাদ ব্যক্তিভেদে ভিন্ন হতে পারে। কিছু লোক বেগুনের স্বাদকে নরম এবং মিষ্টি বলে মনে করে, অন্যরা এটিকে একটু তিক্ত বলে মনে করে। বেগুনের স্বাদ রান্নার পদ্ধতি এবং অন্যান্য উপাদানের উপরও নির্ভর করে।

সাধারণভাবে, বেগুন রান্না করার পরে এর স্বাদ বেশি ভালো হয়। রান্না করার সময়, বেগুনের তিক্ততা কমে যায় এবং এর মিষ্টি স্বাদ আরও স্পষ্ট হয়ে ওঠে। বেগুন বিভিন্ন ধরণের খাবারে ব্যবহার করা যেতে পারে, যার মধ্যে রয়েছে:

  • তরকারি: বেগুন তরকারি একটি জনপ্রিয় পদ। বেগুন, টমেটো, পেঁয়াজ, রসুন এবং অন্যান্য উপাদান দিয়ে এই তরকারি তৈরি করা হয়।
  • ভাজা বেগুন: ভাজা বেগুন একটি সুস্বাদু এবং সহজ উপায়ে বেগুন খাওয়ার। বেগুন পাতলা করে কেটে লবণ, মরিচ এবং অন্যান্য মশলা দিয়ে মেরিনেট করে তারপর ডুবো তেলে ভেজে এই পদ তৈরি করা হয়।
  • বেগুন ডিপ: বেগুন ডিপ একটি জনপ্রিয় স্ন্যাক। বেগুন, টমেটো, রসুন এবং অন্যান্য উপাদান দিয়ে এই ডিপ তৈরি করা হয়।
আরো পড়ুনঃ  ভারতের শিক্ষা মন্ত্রীর নাম কি 2022

আপনি যদি বেগুনের স্বাদ সম্পর্কে নিশ্চিত না হন তবে আপনি ছোট আকারের বেগুন দিয়ে শুরু করতে পারেন। ছোট বেগুনগুলিতে তিক্ততা কম থাকে। আপনি বেগুন রান্না করার আগে এটিকে লবণ দিয়ে মেরিনেট করেও এর তিক্ততা কমাতে পারেন।বেগুন ইংরেজি কি

বেগুন ভাজার আগে কি লবন দিতে হয়

হ্যাঁ, বেগুন ভাজার আগে লবন দেওয়া উচিত। লবণ বেগুনের তিক্ততা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়াও, লবণ বেগুনের রঙ উন্নত করতে সাহায্য করে।

বেগুন ভাজার আগে লবণ দেওয়ার জন্য, প্রথমে বেগুন ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। তারপর, বেগুন পাতলা করে কেটে নিন। বেগুন কেটে নেওয়ার পরে, এটিকে একটি বাটিতে রাখুন। এরপর, বেগুনের উপর সামান্য লবণ ছড়িয়ে দিন। লবণ ছড়িয়ে দেওয়ার পরে, বেগুনটিকে কিছুক্ষণ রেখে দিন যাতে লবণ বেগুনের সাথে মিশে যায়।

বেগুন ভাজার সময়, লবণ বেগুনের তিক্ততা কমাতে সাহায্য করবে। এছাড়াও, লবণ বেগুনের রঙ উন্নত করতে সাহায্য করবে।বেগুন ইংরেজি কি

বেগুন ভাজার আগে লবণ দেওয়ার কিছু সুবিধা:

  • বেগুনের তিক্ততা কমায়।
  • বেগুনের রঙ উন্নত করে।
  • বেগুনকে নরম করে তোলে।
  • বেগুনের স্বাদ উন্নত করে।

বেগুন ভাজার আগে লবণ দেওয়ার কিছু টিপস:

  • বেগুন কেটে নেওয়ার পরে, এটিকে কিছুক্ষণ রেখে দিন যাতে লবণ বেগুনের সাথে মিশে যায়।
  • বেগুন ভাজার সময়, বেগুনকে বেশিক্ষণ ভেজে ফেলবেন না।
  • বেগুন ভাজার সময়, তেল খুব গরম হওয়া থেকে বিরত থাকুন।

রান্না করার আগে বেগুন ভিজিয়ে রাখে কেন

বেগুন রান্না করার আগে ভিজিয়ে রাখলে এর তিক্ততা কমাতে সাহায্য করে। বেগুনে একটি তিক্ত উপাদান রয়েছে যা নাসুনিন নামে পরিচিত। নাসুনিন একটি অ্যালক্যালয়েড যা বেগুনের স্বাদকে তিক্ত করে তোলে। বেগুন ভিজিয়ে রাখলে নাসুনিন পানিতে দ্রবীভূত হয়ে যায় এবং বেগুনের স্বাদ কম তিক্ত হয়ে ওঠে।বেগুন ইংরেজি কি

বেগুন ভিজিয়ে রাখার আরেকটি কারণ হল এর রঙ উন্নত করা। বেগুনে একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে যা অ্যান্থোসায়ানিন নামে পরিচিত। অ্যান্থোসায়ানিন বেগুনের রঙকে বেগুনি করে তোলে। বেগুন ভিজিয়ে রাখলে অ্যান্থোসায়ানিন পানিতে দ্রবীভূত হয়ে যায় এবং বেগুনের রঙ আরও উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।বেগুন ইংরেজি কি

আরো পড়ুনঃ  পশ্চিমবঙ্গের জাতীয় খেলা কি

বেগুন ভিজিয়ে রাখার জন্য, প্রথমে বেগুন ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। তারপর, বেগুন পাতলা করে কেটে নিন। বেগুন কেটে নেওয়ার পরে, এটিকে একটি বাটিতে রাখুন। এরপর, বাটিতে পানি ঢেলে দিন যাতে বেগুন ডুবে যায়। বেগুন ডুবে যাওয়ার পরে, বাটিটিকে কিছুক্ষণ রেখে দিন যাতে বেগুন ভিজে যায়।

বেগুন ভিজিয়ে রাখার সময়, বেগুনকে বেশিক্ষণ ভিজিয়ে রাখবেন না। বেগুন বেশিক্ষণ ভিজিয়ে রাখলে এর ত্বক নরম হয়ে যেতে পারে এবং বেগুন ভেঙে যেতে পারে।বেগুন ইংরেজি কি

বেগুন ভিজিয়ে রাখার জন্য কিছু টিপস:

  • বেগুন কেটে নেওয়ার পরে, এটিকে কিছুক্ষণ রেখে দিন যাতে বেগুন ভিজে যায়।
  • বেগুন বেশিক্ষণ ভিজিয়ে রাখবেন না।
  • বেগুন ভিজিয়ে রাখলে, বেগুনকে লবণ দিয়ে মেরিনেট করতে পারেন। লবণ বেগুনের তিক্ততা আরও কমাতে সাহায্য করবে।

লবণ দেওয়ার পর কি বেগুন ধুয়ে ফেলা হয়

না, লবণ দেওয়ার পর বেগুন ধুয়ে ফেলা উচিত নয়। লবণ দেওয়ার পরে বেগুন ধুয়ে ফেললে বেগুনের তিক্ততা কমানো যায় না। বরং, লবণ দেওয়ার পরে বেগুন কিছুক্ষণ রেখে দিলে লবণ বেগুনের সাথে মিশে যায় এবং বেগুনের তিক্ততা কমাতে সাহায্য করে।

বেগুন ধুয়ে ফেললে বেগুনের বাইরের ত্বকের উপরের স্তরটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এতে বেগুনের স্বাদ এবং পুষ্টিগুণ হ্রাস পেতে পারে।বেগুন ইংরেজি কি

বেগুন ভাজার আগে লবণ দেওয়ার সময়, বেগুনকে কিছুক্ষণ রেখে দিন যাতে লবণ বেগুনের সাথে মিশে যায়। লবণ বেগুনের সাথে মিশে গেলে, বেগুন ধুয়ে ফেলার দরকার নেই।

বেগুন ধুয়ে ফেলার কিছু ক্ষেত্রে:

  • বেগুন ধুয়ে ফেলা যেতে পারে যদি বেগুন ধুয়ে পরিষ্কার করার পর লবণ দেওয়া হয়।
  • বেগুন ধুয়ে ফেলা যেতে পারে যদি বেগুন ভেঙে যায় বা ছিদ্র হয়ে যায়।

তবে, সাধারণত বেগুন লবণ দেওয়ার পরে ধুয়ে ফেলা উচিত নয়।বেগুন ইংরেজি কি

বেগুন ভর্তা ইংরেজি কি

বেগুন ভর্তা ইংরেজিতে Eggplant mash বা Eggplant puree নামে পরিচিত। এটি একটি জনপ্রিয় বাঙালি পদ যা বেগুন, পেঁয়াজ, রসুন, মরিচ, ধনে, জিরা, লবণ এবং অন্যান্য মশলা দিয়ে তৈরি করা হয়। বেগুন ভর্তা সাধারণত ভাতের সাথে পরিবেশন করা হয়।

আরো পড়ুনঃ  ভালো মানুষ নিয়ে কিছু কথা

Eggplant mash শব্দটি বেগুন (eggplant) এবং ম্যাশ (mash) শব্দ দুটি থেকে এসেছে। ম্যাশ শব্দের অর্থ হল “মিহি করে পিষে ফেলা”। তাই, Eggplant mash বলতে বোঝায় বেগুনকে মিহি করে পিষে ফেলা।বেগুন ইংরেজি কি

Eggplant puree শব্দটি বেগুন (eggplant) এবং পিউরি (puree) শব্দ দুটি থেকে এসেছে। পিউরি শব্দের অর্থ হল “মসৃণ এবং ঘন করে পিষে ফেলা”। তাই, Eggplant puree বলতে বোঝায় বেগুনকে মসৃণ এবং ঘন করে পিষে ফেলা।

বেগুন ভর্তা ইংরেজিতে উভয় শব্দই ব্যবহৃত হয়। তবে, Eggplant mash শব্দটি বেশি ব্যবহৃত হয়।

বেগুনের ভর্তা কিভাবে তৈরি হয়?

বেগুনের ভর্তা তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ:

  • বেগুন ২টি
  • পেঁয়াজ কুচি ১টি
  • কাঁচামরিচ কুচি ৫টি
  • ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ
  • লবণ পরিমাণমতো
  • সরিষার তেল পরিমাণমতো

প্রণালী:

১. প্রথমে বেগুন ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। ২. বেগুনের মাঝখানে ছুরি দিয়ে কিছু দাগ কেটে নিন। ৩. একটি চুলায় মাঝারি আঁচে গ্যাস জ্বাল দিন। ৪. গরম তেলে বেগুন দিয়ে দিন। ৫. বেগুন দুই পাশ ভালো করে ভেজে নিন। ৬. বেগুন ভেজে হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন। ৭. বেগুনের খোসা ছাড়িয়ে নিন। ৮. একটি বাটিতে বেগুন, পেঁয়াজ কুচি, কাঁচামরিচ কুচি, ধনেপাতা কুচি এবং লবণ দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে নিন। ৯. সবশেষে সরিষার তেল দিয়ে মাখিয়ে নিন।বেগুন ইংরেজি কি

ব্যস, হয়ে গেল মজাদার বেগুনের ভর্তা। গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন।বেগুন ইংরেজি কি

টিপস:

  • বেগুন তিক্ত হলে লবণ দিয়ে মেরিনেট করে কিছুক্ষণ রেখে দিন।
  • বেগুন বেশি ভেজে ফেলবেন না।
  • ভর্তায় আপনার পছন্দমতো অন্যান্য মশলা যোগ করতে পারেন। যেমন, জিরা গুঁড়া, ধনে গুঁড়া, রসুন বাটা ইত্যাদি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top