বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

Table of Contents

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) বাংলাদেশের একটি রাষ্ট্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়। এটি ১৯৯২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বাউবিতে বিভিন্ন ধরনের কোর্স প্রদান করা হয়।

স্নাতক (সম্মান) কোর্স

বাউবিতে স্নাতক (সম্মান) কোর্স ১৮টি বিভাগে প্রদান করা হয়। বিভাগগুলো হল:

  • বাংলা
  • ইংরেজি
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান
  • অর্থনীতি
  • সমাজবিজ্ঞান
  • দর্শন
  • ইতিহাস
  • ভূগোল
  • গণিত
  • রসায়ন
  • পদার্থবিজ্ঞান
  • উদ্ভিদবিদ্যা
  • প্রাণিবিদ্যা
  • কৃষিবিদ্যা
  • বনবিদ্যা
  • পরিবেশ বিজ্ঞান
  • ফার্মেসি

স্নাতক (সম্মান) কোর্সের মেয়াদ ৪ বছর। প্রতি বছর ২টি সেমিস্টারে কোর্স পরিচালিত হয়। প্রতি সেমিস্টারে ৮টি কোর্স নেওয়া হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

স্নাতক (পাস) কোর্স

বাউবিতে স্নাতক (পাস) কোর্স ১৪টি বিভাগে প্রদান করা হয়। বিভাগগুলো হল:

  • বাংলা
  • ইংরেজি
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান
  • অর্থনীতি
  • সমাজবিজ্ঞান
  • দর্শন
  • ইতিহাস
  • ভূগোল
  • গণিত
  • রসায়ন
  • পদার্থবিজ্ঞান
  • উদ্ভিদবিদ্যা
  • প্রাণিবিদ্যা

স্নাতক (পাস) কোর্সের মেয়াদ ৩ বছর। প্রতি বছর ২টি সেমিস্টারে কোর্স পরিচালিত হয়। প্রতি সেমিস্টারে ৬টি কোর্স নেওয়া হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

ডিপ্লোমা কোর্স

বাউবিতে ডিপ্লোমা কোর্স ৯টি বিভাগে প্রদান করা হয়। বিভাগগুলো হল:

  • কম্পিউটার বিজ্ঞান
  • ইলেকট্রনিক্স ও টেলিকমিউনিকেশন
  • ম্যাকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • কৃষিবিদ্যা
  • বনবিদ্যা
  • পরিবেশ বিজ্ঞান

ডিপ্লোমা কোর্সের মেয়াদ ৩ বছর। প্রতি বছর ২টি সেমিস্টারে কোর্স পরিচালিত হয়। প্রতি সেমিস্টারে ৬টি কোর্স নেওয়া হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

অন্যান্য কোর্স

বাউবিতে অন্যান্য কোর্স হিসেবে রয়েছে:

  • সার্টিফিকেট কোর্স
  • ডিগ্রি কোর্স
  • প্রফেশনাল কোর্স

সার্টিফিকেট কোর্সের মেয়াদ ৬ মাস। ডিগ্রি কোর্সের মেয়াদ ১ বছর। প্রফেশনাল কোর্সের মেয়াদ ২ বছর।

বাউবির কোর্সগুলোর বিস্তারিত তথ্য বাউবির ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স কোর্স সমূহ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) বিভিন্ন ধরনের মাস্টার্স কোর্স প্রদান করে। মাস্টার্স কোর্সগুলোকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়:

  • মাস্টার্স অব সায়েন্স (এমএসসি)
  • মাস্টার্স অব অ্যাপ্লাইড সায়েন্স (এমএসএস)

মাস্টার্স অব সায়েন্স (এমএসসি)

বাউবিতে মাস্টার্স অব সায়েন্স (এমএসসি) কোর্স ১৪টি বিভাগে প্রদান করা হয়। বিভাগগুলো হল:

  • বাংলা
  • ইংরেজি
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান
  • অর্থনীতি
  • সমাজবিজ্ঞান
  • দর্শন
  • ইতিহাস
  • ভূগোল
  • গণিত
  • রসায়ন
  • পদার্থবিজ্ঞান
  • উদ্ভিদবিদ্যা
  • প্রাণিবিদ্যা

এমএসসি কোর্সের মেয়াদ ২ বছর। প্রতি বছর ২টি সেমিস্টারে কোর্স পরিচালিত হয়। প্রতি সেমিস্টারে ৮টি কোর্স নেওয়া হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

আরো পড়ুনঃ  মেয়েদের জন্মদিনের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস

মাস্টার্স অব অ্যাপ্লাইড সায়েন্স (এমএসএস)

বাউবিতে মাস্টার্স অব অ্যাপ্লাইড সায়েন্স (এমএসএস) কোর্স ১১টি বিভাগে প্রদান করা হয়। বিভাগগুলো হল:

  • কম্পিউটার বিজ্ঞান
  • ইলেকট্রনিক্স ও টেলিকমিউনিকেশন
  • ম্যাকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • কৃষিবিদ্যা
  • বনবিদ্যা
  • পরিবেশ বিজ্ঞান
  • ফার্মেসি
  • ব্যবসায় প্রশাসন

এমএসএস কোর্সের মেয়াদ ২ বছর। প্রতি বছর ২টি সেমিস্টারে কোর্স পরিচালিত হয়। প্রতি সেমিস্টারে ৮টি কোর্স নেওয়া হয়।

মাস্টার্স কোর্সের যোগ্যতা

বাউবির মাস্টার্স কোর্সে ভর্তির জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই নিম্নলিখিত যোগ্যতাসম্পন্ন হতে হবে:

  • যেকোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) বা সমমানের ডিগ্রি থাকতে হবে।
  • স্নাতক (সম্মান) পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় শ্রেণি বা সমমানের সিজিপিএ থাকতে হবে।

মাস্টার্স কোর্সের আবেদন

বাউবির মাস্টার্স কোর্সে আবেদন করতে হবে অনলাইনে। আবেদনের জন্য প্রার্থীকে বাউবির ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। আবেদন ফি ১,০০০ টাকা।

মাস্টার্স কোর্সের পরীক্ষা

বাউবির মাস্টার্স কোর্সের পরীক্ষা প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি ও আগস্ট মাসে অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষার ফলাফল সাধারণত পরীক্ষার ৩-৪ মাসের মধ্যে প্রকাশিত হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

মাস্টার্স কোর্সের চাহিদা

বাংলাদেশে মাস্টার্স কোর্সের চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি পেতে মাস্টার্স ডিগ্রি একটি গুরুত্বপূর্ণ যোগ্যতা।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটের মূল্য

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) থেকে প্রাপ্ত সার্টিফিকেটের মূল্য নির্ভর করে সার্টিফিকেটটির ধরন, বিষয় এবং সার্টিফিকেটধারীর কর্মক্ষেত্রে অভিজ্ঞতার উপর।

সাধারণভাবে, বাউবির সার্টিফিকেটগুলো অন্যান্য স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটের সমতুল্য। তবে, কিছু ক্ষেত্রে, বাউবির সার্টিফিকেটধারীদের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটধারীদের তুলনায় কিছুটা কম বেতন দেওয়া হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বাউবির সার্টিফিকেটের কিছু নির্দিষ্ট ক্ষেত্রের মূল্য নিম্নরূপ:

  • স্নাতক (সম্মান) কোর্স: বাউবির স্নাতক (সম্মান) কোর্সের সার্টিফিকেটধারীদের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরির সুযোগ রয়েছে। এছাড়াও, তারা বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা বা গবেষণা কাজ করতে পারেন।
  • স্নাতক (পাস) কোর্স: বাউবির স্নাতক (পাস) কোর্সের সার্টিফিকেটধারীদের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নিম্নমানের পদে চাকরির সুযোগ রয়েছে।
  • ডিপ্লোমা কোর্স: বাউবির ডিপ্লোমা কোর্সের সার্টিফিকেটধারীদের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে মধ্যমমানের পদে চাকরির সুযোগ রয়েছে।

বাউবির সার্টিফিকেটের মূল্য নির্ধারণের ক্ষেত্রে নিম্নলিখিত বিষয়গুলো বিবেচনা করা হয়:

  • সার্টিফিকেটটির ধরন
  • বিষয়
  • সার্টিফিকেটধারীর কর্মক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা
  • সার্টিফিকেটধারীর যোগ্যতা
  • সার্টিফিকেটধারীর কর্মদক্ষতা
আরো পড়ুনঃ  বন্ধুত্ব নিয়ে ক্যাপশন জন্মদিনের

বাউবির সার্টিফিকেটের মূল্য নির্ধারণের জন্য কোনো নির্দিষ্ট নীতিমালা নেই। তবে, উপরোক্ত বিষয়গুলো বিবেচনা করে সাধারণভাবে সার্টিফিকেটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে কি বিসিএস দেয়া যায়

হ্যাঁ, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়ে বিসিএস দেয়া যায়। বিসিএস পরীক্ষায় আবেদনের জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই নিম্নলিখিত যোগ্যতাসম্পন্ন হতে হবে:

  • বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
  • উচ্চ মাধ্যমিক পাস হতে হবে।
  • অনার্স (সম্মান) বা সমমানের ডিগ্রি থাকতে হবে।
  • শিক্ষা জীবনে একের অধিক তৃতীয় শ্রেণি (3rd Class) থাকলে বিসিএস পরীক্ষায় আবেদনের অযোগ্য।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স (সম্মান) বা সমমানের ডিগ্রি অর্জন করলে বিসিএস পরীক্ষায় আবেদন করা যাবে। উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স (সম্মান) ডিগ্রি অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স (সম্মান) ডিগ্রির সমতুল্য।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়াশোনা করে বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার অনেক উদাহরণ রয়েছে। বর্তমানে অনেক উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বিসিএস ক্যাডার হিসেবে কর্মরত আছেন।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিসিএস পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করার জন্য প্রার্থীকে নিম্নলিখিত বিষয়গুলোর দিকে নজর দিতে হবে:

  • নিয়মিত পড়াশোনা করা।
  • বিসিএস পরীক্ষার সিলেবাস ভালোভাবে বুঝে নেওয়া।
  • বিগত সালের বিসিএস প্রশ্নপত্র সমাধান করা।
  • বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য ভালো টিউটর বা কোচিং সেন্টার নির্বাচন করা।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিসিএস পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করা সম্ভব হলে তা একটি ভালো ক্যারিয়ারের সুযোগ তৈরি করতে পারে।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ক্যারিয়ার

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) থেকে পড়াশোনা করে বিভিন্ন ধরনের ক্যারিয়ার গড়া সম্ভব। বাউবির সার্টিফিকেটগুলো অন্যান্য স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটের সমতুল্য। তাই, বাউবির শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরির সুযোগ পান।

বাউবির শিক্ষার্থীদের জন্য ক্যারিয়ারের কিছু সম্ভাব্য ক্ষেত্র হল:

  • সরকারি চাকরি: বাউবির শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সরকারি চাকরির পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারেন। যেমন, বিসিএস, ব্যাংকে চাকরি, শিক্ষকতা, ইত্যাদি।
  • বেসরকারি চাকরি: বাউবির শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি পেতে পারেন। যেমন, তথ্য প্রযুক্তি, ব্যাংক, বীমা, ফার্মাসিউটিক্যাল, ইত্যাদি।
  • স্ব-কর্মসংস্থান: বাউবির শিক্ষার্থীরা নিজেদের ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠান শুরু করে স্বাবলম্বী হতে পারেন।
  • শিক্ষকতা: বাউবির শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করতে পারেন।
  • গবেষণা: বাউবির শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানে গবেষণা কাজ করতে পারেন।

বাউবির শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার গড়ার জন্য কিছু বিষয় মাথায় রাখা উচিত:

  • নিজের যোগ্যতা ও আগ্রহ অনুযায়ী বিষয় নির্বাচন করা।
  • নিয়মিত পড়াশোনা করা এবং দক্ষতা অর্জন করা।
  • সঠিক দিকনির্দেশনা ও সহায়তা নেওয়া।
আরো পড়ুনঃ  জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

বাউবির শিক্ষার্থীদের জন্য ক্যারিয়ারের সুযোগ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই, বাউবির শিক্ষার্থীরা নিজেদের যোগ্যতা ও আগ্রহ অনুযায়ী সঠিক ক্যারিয়ার গড়ে তুলতে পারেন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি তথ্য ২০২৩-২০২৪

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) অনার্স ভর্তি ২০২৩-২০২৪

ভর্তির যোগ্যতা

বাউবি অনার্স ভর্তির জন্য প্রার্থীকে অবশ্যই নিম্নলিখিত যোগ্যতাসম্পন্ন হতে হবে:

  • বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
  • উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • উচ্চ মাধ্যমিকে কমপক্ষে ২য় বিভাগ বা সমমানের জিপিএ থাকতে হবে।
  • নির্দিষ্ট বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগে ভর্তির জন্য উচ্চ মাধ্যমিকে নির্দিষ্ট বিষয়ে কমপক্ষে ২য় বিভাগ বা সমমানের জিপিএ থাকতে হবে।
  • বিকল্প পদ্ধতিতে ভর্তির জন্য নির্দিষ্ট বিষয়ে উচ্চ মাধ্যমিকে কমপক্ষে ৩য় বিভাগ বা সমমানের জিপিএ থাকতে হবে।

ভর্তির আবেদন

বাউবি অনার্স ভর্তির আবেদন করতে হবে অনলাইনে। আবেদনের জন্য প্রার্থীকে বাউবির ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। আবেদন ফি ১,০০০ টাকা।

ভর্তির পরীক্ষা

বাউবি অনার্স ভর্তির জন্য লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় থাকে। পরীক্ষার বিষয়গুলো হল:

  • বাংলা
  • ইংরেজি
  • সাধারণ জ্ঞান
  • নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর লিখিত পরীক্ষা (বিকল্প পদ্ধতিতে ভর্তির ক্ষেত্রে)

ভর্তির ফল প্রকাশ

বাউবি অনার্স ভর্তির ফল প্রকাশ করা হয় আগস্ট মাসে।

ভর্তির সময়সীমা

বাউবি অনার্স ভর্তির আবেদন শুরু হয় জুন মাসে এবং শেষ হয় জুলাই মাসে।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বাউবি অনার্স ভর্তির বিস্তারিত তথ্য বাউবির ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

বাউবি অনার্স ভর্তির আবেদন ফরম পূরণের নির্দেশাবলী

বাউবি অনার্স ভর্তির আবেদন ফরম পূরণের জন্য নিম্নলিখিত ধাপগুলো অনুসরণ করুন:

১. বাউবির ওয়েবসাইটে যান। ২. “অনার্স ভর্তি” লিঙ্কে ক্লিক করুন। ৩. “আবেদন ফরম পূরণ” লিঙ্কে ক্লিক করুন। ৪. আবেদন ফরমটি খুলুন। ৫. আবেদন ফরমে প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করুন। ৬. আবেদন ফরমের সাথে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করুন। ৭. আবেদন ফরমটি সাবমিট করুন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

আবেদন ফরমের সাথে সংযুক্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

  • উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষার মূল সনদপত্র।
  • উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের পরীক্ষার নম্বরপত্র।
  • জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধন সনদ।
  • ছবি (৩ কপি)।
  • ব্যাংক ড্রাফট (১,০০০ টাকার)।

বাউবি অনার্স ভর্তির জন্য পরামর্শ

বাউবি অনার্স ভর্তির জন্য নিম্নলিখিত বিষয়গুলো মাথায় রাখুন:

  • ভর্তির যোগ্যতা ও আবেদনপত্র পূরণের নির্দেশাবলী ভালোভাবে বুঝে নিন।
  • ভর্তির আবেদনপত্র যথাযথভাবে পূরণ করুন।
  • প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঠিকভাবে সংযুক্ত করুন।
  • ভর্তির পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করার জন্য প্রস্তুতি নিন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top