বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

https://jobbd.org/%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%82%e0%a6%b2%e0%a6%be%e0%a6%a6%e0%a7%87%e0%a6%b6-%e0%a6%89%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a7%81%e0%a6%95%e0%a7%8d%e0%a6%a4-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%ac/

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়

নোটিশ

বিষয়: ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষ (২০২৩ ব্যাচ) ১ম বর্ষ ভর্তির বর্ধিত সময়সীমা

উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে জানানো যাচ্ছে যে, ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষ (২০২৩ ব্যাচ) ১ম বর্ষ ভর্তির বর্তমান সময়সীমা ৩১/০৮/২০২৩। ভর্তির বর্ধিত সময়সীমা ২০/০৯/২০২৩।

নির্দেশক্রমে,

প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়

গাজীপুর

০৭ ডিসেম্বর, ২০২৩

অনলাইনে ভর্তি পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) ভিজিট করুন।

ভর্তি সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটের “ভর্তি” পাতাটি দেখুন অথবা যোগাযোগ করুন নিকটস্থ আঞ্চলিক/উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রের সাথে।

ভর্তি সংক্রান্ত অভিযোগের জন্য বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটের “অভিযোগ” পাতাটি দেখুন অথবা যোগাযোগ করুন বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কার্যালয়ের সাথে।

বিদেশী শিক্ষার্থীদের ভর্তি সংক্রান্ত তথ্যের জন্য বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটের “বিদেশী শিক্ষার্থী” পাতাটি দেখুন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় রেজাল্ট

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এ পরীক্ষায় মোট ১,৪২,৯৩৪ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন এবং ১,৩৭,২১৬ জন উত্তীর্ণ হন। উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র ৬৪,৪০০ জন এবং ছাত্রী ৭২,৮১৬ জন। পাসের হার ৯৫.৫০%।

ফলাফল প্রকাশের পর বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ হুমায়ুন আখতার এক বিবৃতিতে বলেন, “এ বছরের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল অত্যন্ত সন্তোষজনক। শিক্ষার্থীরা ভালো ফলাফল করে আমাদের গর্বিত করেছে। আমি তাদের সাফল্যের জন্য অভিনন্দন জানাই।”

তিনি আরও বলেন, “বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের লক্ষ্য হল দেশের দরিদ্র ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জন্য শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করা। আমরা এই লক্ষ্য অর্জনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

ফলাফল দেখার জন্য বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) ভিজিট করুন। ফলাফল দেখার জন্য আপনার ব্যবহারকারী আইডি/ইএমআইএস আইডি এবং পাসওয়ার্ড প্রয়োজন হবে।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

ফলাফল দেখার নিয়ম

১. বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) ভিজিট করুন। ২. “ফলাফল” ট্যাবে ক্লিক করুন। ৩. “এসএসসি পরীক্ষা ২০২৩” নির্বাচন করুন। ৪. আপনার ব্যবহারকারী আইডি/ইএমআইএস আইডি এবং পাসওয়ার্ড প্রবেশ করুন। ৫. “লগইন” বাটনে ক্লিক করুন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

অন্যান্য তথ্য

  • ফলাফল প্রকাশের তারিখ: ২০২৩ সালের ১২ ডিসেম্বর।
  • ফলাফল দেখার সময়: সকাল ৮টা থেকে রাত ১২টা।
  • ফলাফল সংরক্ষণের সময়: ১৫ দিন।

নির্দিষ্ট তথ্য

  • মোট পরীক্ষার্থী: ১,৪২,৯৩৪ জন।
  • উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থী: ১,৩৭,২১৬ জন।
  • পাসের হার: ৯৫.৫০%।
  • ছাত্র: ৬৪,৪০০ জন।
  • ছাত্রী: ৭২,৮১৬ জন।
আরো পড়ুনঃ  পাকিস্তান বনাম নিউজিল্যান্ডের খেলা

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় রেজাল্ট দেখব কিভাবে?

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজাল্ট দেখার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন:

১. বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (www.bou.ac.bd) ভিজিট করুন। ২. “ফলাফল” ট্যাবে ক্লিক করুন। ৩. আপনি যে পরীক্ষার ফলাফল দেখতে চান সেটি নির্বাচন করুন। ৪. আপনার ব্যবহারকারী আইডি/ইএমআইএস আইডি এবং পাসওয়ার্ড প্রবেশ করুন। ৫. “লগইন” বাটনে ক্লিক করুন।

আপনার ব্যবহারকারী আইডি/ইএমআইএস আইডি এবং পাসওয়ার্ড আপনি আপনার কলেজের স্টাডি সেন্টার থেকে পেয়েছেন। যদি আপনার কাছে এগুলো না থাকে, তাহলে আপনি আপনার কলেজের স্টাডি সেন্টারে যোগাযোগ করে সেগুলো সংগ্রহ করতে পারেন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

আপনার ফলাফল দেখার পর, আপনি এটি একটি পিডিএফ ফাইল হিসেবে ডাউনলোড করতে পারেন। ডাউনলোড করা ফাইলটি আপনার কম্পিউটারে বা মোবাইলে সংরক্ষণ করতে পারেন।

আপনি যদি আপনার ফলাফলের সাথে অসন্তুষ্ট হন, তাহলে আপনি পুনঃনিরীক্ষণ বা অভিযোগ আবেদন করতে পারেন। পুনঃনিরীক্ষণের জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট ফি জমা দিতে হবে। অভিযোগ আবেদনের জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট ফর্ম পূরণ করতে হবে।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজাল্ট দেখার আরেকটি উপায় হল মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করা। আপনি আপনার মোবাইল ফোনে “বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়” নামে একটি অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারেন। অ্যাপটিতে আপনি আপনার রেজাল্ট দেখতে পারবেন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজাল্ট দেখার সময় আপনার সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। আপনার ব্যবহারকারী আইডি/ইএমআইএস আইডি এবং পাসওয়ার্ড অন্য কারো সাথে শেয়ার করবেন না।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বেসরকারি নাকি সরকারি

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। এটি ১৯৯২ সালের ১৬ অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির অধীনে একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের লক্ষ্য হল দেশের দরিদ্র ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর জন্য শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টি করা।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম মূলত দূরশিক্ষণ পদ্ধতির মাধ্যমে পরিচালিত হয়। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক, স্নাতকোত্তর এবং এমফিল ডিগ্রী প্রদান করা হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কার্যালয় ঢাকায় অবস্থিত। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সারাদেশে ১৬টি আঞ্চলিক কেন্দ্র এবং ৪৬টি উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্র রয়েছে।

উন্মুক্ত থেকে কি মাস্টার্স করা যায়?

হ্যাঁ, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করা যায়। তবে, ২০১৮ সালের পর থেকে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রাপ্ত ডিগ্রি দিয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সে ভর্তি হওয়ার সুযোগ নেই। এখন শুধু উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করা যায়।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করার জন্য নিম্নলিখিত যোগ্যতা পূরণ করতে হবে:

  • উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।
  • স্নাতক পরীক্ষায় কমপক্ষে দ্বিতীয় শ্রেণি (বিভাগীয় পরীক্ষায় তৃতীয় শ্রেণি) থাকতে হবে।
  • নির্দিষ্ট বিষয়ে মাস্টার্সের জন্য আবেদন করতে হলে সেই বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি থাকতে হবে।
আরো পড়ুনঃ  গুগোল আমার নাম কি

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করার জন্য আবেদন করার সময় নির্দিষ্ট ফি জমা দিতে হয়। মাস্টার্সের কোর্স সাধারণত দুই বছর মেয়াদী।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করার সুবিধা হল:

  • দূরশিক্ষণ পদ্ধতির মাধ্যমে পড়াশোনা করা যায়।
  • চাকরির পাশাপাশি পড়াশোনা করা যায়।
  • খরচ তুলনামূলকভাবে কম।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করার অসুবিধা হল:

  • স্বীকৃতি নিয়ে সমস্যা হতে পারে।
  • প্রায়ই শিক্ষকদের সাথে যোগাযোগের অসুবিধা হয়।
  • পরীক্ষার জন্য নিয়মিত উপস্থিত থাকতে হয়।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি কি ভালো

ন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি ভালো কিনা তা নির্ভর করে আপনার প্রয়োজনীয়তার উপর। যদি আপনি গণিতের জ্ঞান অর্জন করতে চান এবং চাকরির জন্য প্রস্তুত হতে চান, তাহলে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি একটি ভালো বিকল্প হতে পারে। উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি আপনাকে গণিতের মৌলিক বিষয়গুলি সম্পর্কে ব্যাপক জ্ঞান দেবে। এছাড়াও, আপনি গণিতের বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ হতে পারবেন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

তবে, যদি আপনি গবেষণার জন্য গণিত ডিগ্রি অর্জন করতে চান, তাহলে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি আপনার জন্য উপযুক্ত নয়। কারণ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি গবেষণার জন্য যথেষ্ট গভীরতা প্রদান করে না।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রির সুবিধা হল:

  • দূরশিক্ষণ পদ্ধতির মাধ্যমে পড়াশোনা করা যায়।
  • চাকরির পাশাপাশি পড়াশোনা করা যায়।
  • খরচ তুলনামূলকভাবে কম।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রির অসুবিধা হল:

  • স্বীকৃতি নিয়ে সমস্যা হতে পারে।
  • প্রায়ই শিক্ষকদের সাথে যোগাযোগের অসুবিধা হয়।
  • পরীক্ষার জন্য নিয়মিত উপস্থিত থাকতে হয়।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি নিয়ে চাকরির ক্ষেত্রে ভালো সুযোগ রয়েছে। আপনি গণিতের শিক্ষক, গণিতবিদ, সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ার, ডাটা সায়েন্টিস্ট, বিশ্লেষক ইত্যাদি পেশায় চাকরি পেতে পারেন।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

এক কথায়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি ভালো কিনা তা আপনার প্রয়োজনীয়তার উপর নির্ভর করে। যদি আপনি চাকরির জন্য গণিতের জ্ঞান অর্জন করতে চান, তাহলে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত ডিগ্রি একটি ভালো বিকল্প হতে পারে।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) বিভিন্ন স্তরের এবং বিভিন্ন বিষয়ের উপর কোর্স প্রদান করে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্সগুলি মূলত দূরশিক্ষণ পদ্ধতির মাধ্যমে পরিচালিত হয়।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের কোর্স

বাউবি উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের বিভিন্ন বিষয়ে কোর্স প্রদান করে। এই কোর্সগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • বিজ্ঞান বিভাগের কোর্স: পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান, গণিত, ইংরেজি, বাংলা, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ভূগোল, ব্যবসায় শিক্ষা
  • মানবিক বিভাগের কোর্স: বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ভূগোল, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, ইসলামের মূলনীতি, ইসলামী শিক্ষা
  • কলা বিভাগের কোর্স: বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ভূগোল, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, ইসলামের মূলনীতি, ইসলামী শিক্ষা
আরো পড়ুনঃ  জন্ম তারিখ অনুযায়ী কার কোন রাশি

স্নাতক স্তরের কোর্স

বাউবি স্নাতক স্তরের বিভিন্ন বিষয়ে কোর্স প্রদান করে। এই কোর্সগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • বিজ্ঞান বিভাগের কোর্স: পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান, গণিত, কম্পিউটার বিজ্ঞান, কৃষিবিজ্ঞান, ফার্মেসি, ইঞ্জিনিয়ারিং
  • মানবিক বিভাগের কোর্স: বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ভূগোল, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, আইন, মনোবিজ্ঞান, শিক্ষা, সঙ্গীত, চারুকলা, নৃত্য
  • কলা বিভাগের কোর্স: বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ভূগোল, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, আইন, মনোবিজ্ঞান, শিক্ষা, সঙ্গীত, চারুকলা, নৃত্য

স্নাতকোত্তর স্তরের কোর্স

বাউবি স্নাতকোত্তর স্তরের বিভিন্ন বিষয়ে কোর্স প্রদান করে। এই কোর্সগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • বিজ্ঞান বিভাগের কোর্স: পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিজ্ঞান, গণিত, কম্পিউটার বিজ্ঞান, কৃষিবিজ্ঞান, ফার্মেসি, ইঞ্জিনিয়ারিং
  • মানবিক বিভাগের কোর্স: বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ভূগোল, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, আইন, মনোবিজ্ঞান, শিক্ষা, সঙ্গীত, চারুকলা, নৃত্য
  • কলা বিভাগের কোর্স: বাংলা, ইংরেজি, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস, ভূগোল, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, আইন, মনোবিজ্ঞান, শিক্ষা, সঙ্গীত, চারুকলা, নৃত্য

অন্যান্য কোর্স

বাউবি বিভিন্ন পেশাদার কোর্সও প্রদান করে। এই কোর্সগুলির মধ্যে রয়েছে:

  • কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কোর্স
  • ইংরেজি ভাষা প্রশিক্ষণ কোর্স
  • শিক্ষক প্রশিক্ষণ কোর্স
  • ব্যবসায় প্রশিক্ষণ কোর্স
  • প্রশাসন প্রশিক্ষণ কোর্স
  • কারিগরি প্রশিক্ষণ কোর্স

বাউবির কোর্সগুলির জন্য ভর্তি যোগ্যতা সাধারণত উচ্চ মাধ্যমিক বা স্নাতক ডিগ্রি। তবে, নির্দিষ্ট কোর্সের জন্য নির্দিষ্ট যোগ্যতা প্রয়োজন হতে পারে।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ

বাউবির কোর্সগুলির ফি সাধারণত তুলনামূলকভাবে কম। তবে, নির্দিষ্ট কোর্সের জন্য নির্দিষ্ট ফি প্রযোজ্য হতে পারে।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি তথ্য ২০২৩-২০২৪

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি তথ্য

ভর্তি যোগ্যতা

  • উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের কোর্স: এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • স্নাতক স্তরের কোর্স: এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • স্নাতকোত্তর স্তরের কোর্স: স্নাতক ডিগ্রিধারী হতে হবে।

আবেদন পদ্ধতি

  • অনলাইন আবেদন: www.osapsnew.bou.ac.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে।
  • পোস্টাল আবেদন: আবেদনপত্র সংগ্রহ করে পূরণ করে পোস্টের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে।

আবেদন ফি

  • উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের কোর্স: ৫০০ টাকা।
  • স্নাতক স্তরের কোর্স: ১০০০ টাকা।
  • স্নাতকোত্তর স্তরের কোর্স: ১৫০০ টাকা।

আবেদন শুরু: ২০২৩ সালের ১ জুন।

আবেদন শেষ: ২০২৩ সালের ৩১ জুলাই।

পরীক্ষা

  • উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের কোর্স: ০৯ আগস্ট ২০২৩।
  • স্নাতক স্তরের কোর্স: ১৬ আগস্ট ২০২৩।
  • স্নাতকোত্তর স্তরের কোর্স: ২৩ আগস্ট ২০২৩।

ভর্তির তারিখ

  • উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের কোর্স: ২০২৩ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর।
  • স্নাতক স্তরের কোর্স: ২০২৩ সালের ৩০ অক্টোবর।
  • স্নাতকোত্তর স্তরের কোর্স: ২০২৩ সালের ৩০ নভেম্বর।

বিস্তারিত তথ্যের জন্য

  • বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট: www.bou.ac.bd
  • বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের আঞ্চলিক কেন্দ্র/উপ-আঞ্চলিক কেন্দ্রের নোটিশ বোর্ড।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top