তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

https://jobbd.org/%e0%a6%a4%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%b0-%e0%a6%a8%e0%a6%be%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%9c-%e0%a6%95%e0%a6%a4-%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%95%e0%a6%be%e0%a6%a4-%e0%a6%a8%e0%a6%ab/

তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নিয়ে ওলামায়ে কেরামের মাঝে মতভেদ রয়েছে। হানাফি মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ২০ রাকাত। এ মতামতকে সমর্থন করে অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “যে ব্যক্তি রমজান মাসে ইমানের সঙ্গে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে তারাবির নামাজ আদায় করেন, তার অতীতের গুনাহগুলো আল্লাহপাক ক্ষমা করে দেবেন।” (বুখারি শরিফ)

অন্যদিকে, শাফেয়ী, মালেকি ও হাম্বলী মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ৮ রাকাত। এ মতামতকে সমর্থন করেও অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করতেন। (বুখারি শরিফ)তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

সুতরাং, তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা ২০ রাকাত হওয়াই অধিক গ্রহণযোগ্য। তবে, ৮ রাকাত পড়াও জায়েয।

বাংলাদেশে অধিকাংশ মানুষ হানাফি মাযহাবের অনুসারী। তাই বাংলাদেশে তারাবির নামাজ ২০ রাকাত পড়া হয়।

সৌদি আরবে তারাবির নামাজ কত রাকাত

সৌদি আরবে তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা ২০। মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববীতে তারাবির নামাজ ২০ রাকাত পড়া হয়। তবে, ২০২৩ সালের রমজানে করোনাভাইরাসের কারণে সৌদি সরকারের নির্দেশে মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববীতে তারাবির নামাজ ১০ রাকাত পড়া হয়েছিল। তবে, ২০২৪ সালের রমজানে তারাবির নামাজ আবারো ২০ রাকাত পড়া হচ্ছে।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

সৌদি আরবের শাসনামলের প্রতিষ্ঠাতা, প্রথম সৌদি বাদশাহ আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ (রহ.) ২০ রাকাত তারাবির নামাজের উপর আমল করতেন। তাই সৌদি আরবে তারাবির নামাজ ২০ রাকাত পড়ার ঐতিহ্য রয়েছে।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

তারাবির নামাজ কত রাকাত ও কি কি

তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নিয়ে ওলামায়ে কেরামের মাঝে মতভেদ রয়েছে। হানাফি মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ২০ রাকাত। এ মতামতকে সমর্থন করে অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “যে ব্যক্তি রমজান মাসে ইমানের সঙ্গে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে তারাবির নামাজ আদায় করেন, তার অতীতের গুনাহগুলো আল্লাহপাক ক্ষমা করে দেবেন।” (বুখারি শরিফ)তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

আরো পড়ুনঃ  আর্জেন্টিনা বনাম ক্রোয়েশিয়া জাতীয় ফুটবল দল - এর পরিসংখ্যান

অন্যদিকে, শাফেয়ী, মালেকি ও হাম্বলী মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ৮ রাকাত। এ মতামতকে সমর্থন করেও অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করতেন। (বুখারি শরিফ)

সুতরাং, তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা ২০ রাকাত হওয়াই অধিক গ্রহণযোগ্য। তবে, ৮ রাকাত পড়াও জায়েয।

তারাবির নামাজের নিয়ম হলো, দুই রাকাত করে একসাথে আদায় করা। প্রতি দুই রাকাতের পর সালাম ফেরাতে হবে। তারাবির নামাজে সুরা ফাতিহা ও অন্য কোনো সুরা পড়া হয়। তারাবির নামাজে দীর্ঘ তিলাওয়াত করা হয়।

তারাবির নামাজের ফজিলত অনেক। রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “যে ব্যক্তি রমজান মাসে ইমানের সঙ্গে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে তারাবির নামাজ আদায় করেন, তার অতীতের গুনাহগুলো আল্লাহপাক ক্ষমা করে দেবেন।” (বুখারি শরিফ)

তারাবির নামাজ রমজান মাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ ইবাদত। এ নামাজ আদায়ের মাধ্যমে আমরা আল্লাহর নৈকট্য লাভ করতে পারি এবং আমাদের গুনাহগুলো মাফ হতে পারে।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

তারাবির নামাজ কত রাকাত সহীহ হাদিস

তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নিয়ে সহীহ হাদিসে দুইটি মত পাওয়া যায়।

প্রথম মত: তারাবির নামাজ ২০ রাকাত। এ মতটিকে সমর্থন করে নিম্নলিখিত হাদিসগুলো রয়েছে:

  • হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “যে ব্যক্তি রমজান মাসে ইমানের সঙ্গে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে তারাবির নামাজ আদায় করেন, তার অতীতের গুনাহগুলো আল্লাহপাক ক্ষমা করে দেবেন।” (বুখারি শরিফ, হাদিস নং: ২০১৪)
  • হজরত উবাই ইবনে কাব (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, “রমজান মাসে রাসুলুল্লাহ (সা.) আমাদের তারাবির নামাজে ইমামতি করতেন। তিনি ২০ রাকাত নামাজ পড়তেন এবং প্রতি দুই রাকাতের পর সালাম ফেরাতেন।” (বুখারি শরিফ, হাদিস নং: ২০১২)
  • হজরত আনাস ইবনে মালেক (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, “রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজে ২০ রাকাত নামাজ পড়তেন এবং প্রতি দুই রাকাতের পর সালাম ফেরাতেন।” (মুসলিম শরিফ, হাদিস নং: ৭৩৮)

দ্বিতীয় মত: তারাবির নামাজ ৮ রাকাত। এ মতটিকে সমর্থন করে নিম্নলিখিত হাদিসগুলো রয়েছে:

  • হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, “রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করতেন।” (বুখারি শরিফ, হাদিস নং: ২০১৩)
  • হজরত জাবির ইবনে আবদুল্লাহ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, “রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করতেন এবং বিতর নামাজ পড়তেন।” (মুসলিম শরিফ, হাদিস নং: ৭৩৭)
আরো পড়ুনঃ  বাংলাদেশ পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর কোথায় অবস্থিত

উভয় মতের হাদিসই সহীহ। তবে, প্রথম মতের হাদিসগুলোর সংখ্যা দ্বিতীয় মতের হাদিসগুলোর চেয়ে বেশি। তাই, তারাবির নামাজ ২০ রাকাত হওয়াই অধিক গ্রহণযোগ্য।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

মক্কায় তারাবির নামাজ কত রাকাত

মক্কায় তারাবির নামাজ ২০ রাকাত। মক্কার মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীতে তারাবির নামাজ ২০ রাকাত পড়া হয়। এটি একটি দীর্ঘ ঐতিহ্য। আমিরুল মুমিনীন হজরত উমর ফারুক (রা.)-এর খেলাফতকাল থেকে অবিচ্ছিন্ন কর্মধারায় এখন পর্যন্ত মক্কা শরিফের মসজিদুল হারাম ও মদিনা শরিফের মসজিদে নববীসহ সকল মসজিদে বিশ রাকাত তারাবি পড়া হয়। এ দীর্ঘ সময়ে কোথাও আট রাকাত তারাবির প্রচলন ছিল না।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

২০২৩ সালের রমজানে করোনাভাইরাসের কারণে সৌদি সরকারের নির্দেশে মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববীতে তারাবির নামাজ ১০ রাকাত পড়া হয়েছিল। তবে, ২০২৪ সালে তারাবির নামাজ আবারো ২০ রাকাত পড়া হচ্ছে।

তারাবির নামাজ কত রাকাত পড়া উত্তম

তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নিয়ে ওলামায়ে কেরামের মাঝে মতভেদ রয়েছে। তবে, বেশিরভাগ ওলামায়ে কেরামের মতে, তারাবির নামাজ ২০ রাকাত পড়া উত্তম। এ মতটিকে সমর্থন করে অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “যে ব্যক্তি রমজান মাসে ইমানের সঙ্গে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে তারাবির নামাজ আদায় করেন, তার অতীতের গুনাহগুলো আল্লাহপাক ক্ষমা করে দেবেন।” (বুখারি শরিফ)

এছাড়াও, হজরত উবাই ইবনে কাব (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, “রমজান মাসে রাসুলুল্লাহ (সা.) আমাদের তারাবির নামাজে ইমামতি করতেন। তিনি ২০ রাকাত নামাজ পড়তেন এবং প্রতি দুই রাকাতের পর সালাম ফেরাতেন।” (বুখারি শরিফ)

অন্যদিকে, হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, “রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করতেন।” (বুখারি শরিফ)

এই হাদিসটিকে সমর্থন করে শাফেয়ী, মালেকি ও হাম্বলী মাযহাবের আলেমগণ ৮ রাকাত তারাবির পক্ষে মত দিয়েছেন। তবে, তারাও ২০ রাকাত তারাবির পক্ষে মত দিয়েছেন।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

সুতরাং, তারাবির নামাজ ২০ রাকাত পড়া উত্তম। তবে, ৮ রাকাত পড়াও জায়েয।

তারাবির নামাজ কত রাকাত আল কাউসার

তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নিয়ে ওলামায়ে কেরামের মাঝে মতভেদ রয়েছে। হানাফি মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ২০ রাকাত। এ মতটিকে সমর্থন করে অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “যে ব্যক্তি রমজান মাসে ইমানের সঙ্গে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে তারাবির নামাজ আদায় করেন, তার অতীতের গুনাহগুলো আল্লাহপাক ক্ষমা করে দেবেন।” (বুখারি শরিফ)তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

আরো পড়ুনঃ  গুচ্ছ ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম

অন্যদিকে, শাফেয়ী, মালেকি ও হাম্বলী মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ৮ রাকাত। এ মতটিকে সমর্থন করেও অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করতেন। (বুখারি শরিফ)

সুতরাং, তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা ২০ রাকাত হওয়াই অধিক গ্রহণযোগ্য। তবে, ৮ রাকাত পড়াও জায়েয।

আল কাউসার একটি সুরা। এ সুরায় তারাবির নামাজের কোনো উল্লেখ নেই। তাই, তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নির্ধারণের জন্য আল কাউসার সুরার কোনো ভূমিকা নেই।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

তারাবির নামাজ 8 রাকাত পড়া যাবে কি?

হ্যাঁ, তারাবির নামাজ ৮ রাকাত পড়া যাবে। তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নিয়ে ওলামায়ে কেরামের মাঝে মতভেদ রয়েছে। হানাফি মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ২০ রাকাত। এ মতটিকে সমর্থন করে অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “যে ব্যক্তি রমজান মাসে ইমানের সঙ্গে সাওয়াবের উদ্দেশ্যে তারাবির নামাজ আদায় করেন, তার অতীতের গুনাহগুলো আল্লাহপাক ক্ষমা করে দেবেন।” (বুখারি শরিফ)তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

অন্যদিকে, শাফেয়ী, মালেকি ও হাম্বলী মাযহাবের মতে, তারাবির নামাজ ৮ রাকাত। এ মতটিকে সমর্থন করেও অনেক সহিহ হাদিস রয়েছে। যেমন, হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করতেন। (বুখারি শরিফ)

সুতরাং, তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা ২০ রাকাত হওয়াই অধিক গ্রহণযোগ্য। তবে, ৮ রাকাত পড়াও জায়েয।

যারা ৮ রাকাত তারাবির পক্ষে মত দেন, তারা বলেন, হজরত ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসটি তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নির্ধারণের জন্য সবচেয়ে গ্রহণযোগ্য। এ হাদিসে রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ৮ রাকাত আদায় করেছেন বলে উল্লেখ রয়েছে।

যারা ২০ রাকাত তারাবির পক্ষে মত দেন, তারা বলেন, হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত হাদিসটিও তারাবির নামাজের রাকাত সংখ্যা নির্ধারণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এ হাদিসে রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে তারাবির নামাজ ২০ রাকাত আদায় করেছেন বলে উল্লেখ রয়েছে।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

সুতরাং, তারাবির নামাজ কত রাকাত পড়া হবে, তা নির্ভর করে ব্যক্তির মাজহাবের উপর। তবে, উভয় মতের হাদিসই সহীহ। তাই, যে ব্যক্তি যে মাযহাবের অনুসারী, সে অনুযায়ী তারাবির নামাজ আদায় করতে পারে।তারাবির নামাজ কত রাকাত নফল?

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top