ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

https://jobbd.org/%e0%a6%a2%e0%a6%be%e0%a6%95%e0%a6%be-%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%b6%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%ac%e0%a6%bf%e0%a6%a6%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b2%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%95%e0%a6%ac%e0%a7%87/

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ১৯২১ সালের ১ জুলাই প্রতিষ্ঠিত হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ। এটি বাংলাদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ইতিহাস

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার ইতিহাস শুরু হয়েছিল ১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গের মাধ্যমে। বঙ্গভঙ্গের মাধ্যমে পূর্ব বাংলা ও আসামকে নিয়ে একটি নতুন প্রদেশ গঠিত হয় এবং ঢাকাকে এর রাজধানী করা হয়। এই ঘটনাটি পূর্ব বাংলার মুসলিম জনগোষ্ঠীর কাছে একটি ঐতিহাসিক বিজয় ছিল।

বঙ্গভঙ্গের পর পূর্ব বাংলায় উচ্চশিক্ষার জন্য একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি জোরদার হয়। পূর্ব বাংলার মুসলিম জনগোষ্ঠীর নেতৃত্ব দেন ঢাকার নবাব স্যার সলিমুল্লাহ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

১৯১১ সালে বঙ্গভঙ্গ রদের পর পূর্ব বাংলার মুসলিম জনগোষ্ঠীর মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দেয়। বঙ্গভঙ্গ রদের পর ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি আরও জোরদার হয়।

১৯১২ সালের ২ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের ভাইসরয় লর্ড হার্ডিঞ্জ। এরপর ১৯১৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাস হয়।

১৯২১ সালের ১ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। তিনটি অনুষদ, ১২টি বিভাগ, ৬০ জন শিক্ষক, ৮৪৭ জন ছাত্রছাত্রী ও তিনটি আবাসিক হল (সলিমুল্লাহ, জগন্নাথ, শহীদুল্লাহ হল) নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি যাত্রা শুরু করে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদী চেতনার বিকাশে এবং স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার ইতিহাস পূর্ব বাংলার মুসলিম জাতীয়তাবাদের বিকাশের একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি দাতা কে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি দাতা হিসেবে ঐতিহ্যগতভাবে নবাব স্যার সলিমুল্লাহর নাম উল্লেখ করা হয়। বলা হয়ে থাকে, তিনি ৬০০ একর জমি দান করেছিলেন। তবে ঐতিহাসিক তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে বলা যায় যে, নবাব সলিমুল্লাহর জমিদানের বিষয়টি সত্য নয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যে জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হয়, তার অধিকাংশই সরকারি খাসজমি। ১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গের পর ঢাকাকে পূর্ব বাংলা ও আসামের রাজধানী করা হয়। এই সময় ঢাকায় একটি নতুন প্রশাসনিক ভবন নির্মাণের জন্য ৬০০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়। এই জমিগুলোর মধ্যে কিছু জমি ছিল নবাব পরিবারের। তবে এই জমিগুলোর মালিকানা নবাব সলিমুল্লাহর ছিল না। বরং এগুলো ছিল পূর্ব বাংলার মুসলিম জনগোষ্ঠীর।

আরো পড়ুনঃ  গুচ্ছ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ২০২৩

১৯১২ সালে লর্ড হার্ডিঞ্জ ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন। এরপর ১৯১৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাস হয়। এই আইনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকার সরবরাহ করবে।

১৯১৭ সালে গঠিত স্যাডলার কমিশন বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন দেয়। এই প্রতিবেদনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকারের কাছ থেকে সরবরাহ করা হবে।

১৯২০ সালের ১৩ মার্চ ভারতীয় আইনসভা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন (অ্যাক্ট নং ১৩) পাস করে। এই আইনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকার সরবরাহ করবে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

উপরোক্ত তথ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে বলা যায় যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি দাতা নবাব স্যার সলিমুল্লাহ নন। বরং জমিগুলোর মালিকানা ছিল পূর্ব বাংলার মুসলিম জনগোষ্ঠীর এবং জমিগুলো সরকারের কাছ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য সরবরাহ করা হয়েছিল।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস কবে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস প্রতি বছর ১ জুলাই পালিত হয়। এই দিনে ১৯২১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। ১৯২১ সালের এই দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। তিনটি অনুষদ, ১২টি বিভাগ, ৬০ জন শিক্ষক, ৮৪৭ জন ছাত্রছাত্রী ও তিনটি আবাসিক হল (সলিমুল্লাহ, জগন্নাথ, শহীদুল্লাহ হল) নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি যাত্রা শুরু করে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদী চেতনার বিকাশে এবং স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

১৯২১ সালের ১ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হওয়ার স্মরণে প্রতি বছর এই দিনটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস হিসেবে পালিত হয়। এই দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ছাত্র কে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ছাত্র হলেন আবদুল ওয়াহেদ চৌধুরী। তিনি ১৯২১ সালে কলা অনুষদের ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হন। তিনি ১৯২৪ সালে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন।

আবদুল ওয়াহেদ চৌধুরী একজন খ্যাতিমান শিক্ষাবিদ ও লেখক ছিলেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রথম অধ্যাপক ছিলেন। তিনি ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম ছাত্রী হলেন লীলা নাগ। তিনি ১৯২৩ সালে ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হন। তিনি ১৯২৬ সালে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

লীলা নাগ একজন খ্যাতিমান সাংবাদিক, জনহিতৈষী ও রাজনৈতিক আন্দোলনে সক্রিয় ব্যক্তি ছিলেন। তিনি ১৯৭০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করেন কে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করেন মূলত পশ্চিমবঙ্গের হিন্দু নেতারা। তারা মনে করতেন যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করলে পূর্ব বাংলার মুসলমানরা বেশি সুযোগ-সুবিধা পাবে। এতে পশ্চিমবঙ্গের হিন্দুদের ক্ষতি হবে।

আরো পড়ুনঃ  মোবাইল ফোনের উপকারিতা বিতর্ক প্রতিযোগিতা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতাকারীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন:

  • কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য স্যার আশুতোষ মুখোপাধ্যায়
  • রাজনীতিবিদ সুরেন্দ্রনাথ ব্যানার্জী
  • হিন্দু মহাসভার প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়

এই নেতারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য বিভিন্ন দাবি-দাওয়া করেছিলেন। তারা দাবি করেছিলেন যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা কলেজগুলোকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে রাখা হবে। তারা এও দাবি করেছিলেন যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্রদের সংখ্যা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমতুল্য হবে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ব্রিটিশ সরকার এই দাবিগুলো মেনে নেয়নি। ফলে ১৯২১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা দেওয়া হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের তথা পূর্ব বাংলার প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯২১ সালের ১লা জুলাই এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়। পূর্ববঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান হল একটি মুসলমান মধ্যবিত্ত সমাজ সৃষ্টি করা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রেক্ষাপট

১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গের পর ঢাকাকে পূর্ব বাংলা ও আসামের রাজধানী করা হয়। এই সময় পূর্ব বাংলার মুসলমান নেতারা একটি স্বতন্ত্র বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন। তারা মনে করতেন যে, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় হিন্দুদের নিয়ন্ত্রণাধীন এবং তারা পূর্ব বাংলার মুসলমানদের চাহিদা পূরণ করতে পারে না।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করেন মূলত পশ্চিমবঙ্গের হিন্দু নেতারা। তারা মনে করতেন যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করলে পূর্ব বাংলার মুসলমানরা বেশি সুযোগ-সুবিধা পাবে। এতে পশ্চিমবঙ্গের হিন্দুদের ক্ষতি হবে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা

১৯১২ সালে লর্ড হার্ডিঞ্জ ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন। এরপর ১৯১৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাস হয়। এই আইনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকার সরবরাহ করবে।

১৯১৭ সালে গঠিত স্যাডলার কমিশন বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন দেয়। এই প্রতিবেদনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকারের কাছ থেকে সরবরাহ করা হবে।

১৯২০ সালের ১৩ মার্চ ভারতীয় আইনসভা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন (অ্যাক্ট নং ১৩) পাস করে। এই আইনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকার সরবরাহ করবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্বোধন

১৯২১ সালের ১লা জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। তিনটি অনুষদ, ১২টি বিভাগ, ৬০ জন শিক্ষক, ৮৪৭ জন ছাত্রছাত্রী ও তিনটি আবাসিক হল (সলিমুল্লাহ, জগন্নাথ, শহীদুল্লাহ হল) নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি যাত্রা শুরু করে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবদান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদী চেতনার বিকাশে এবং স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনেক খ্যাতিমান শিক্ষাবিদ, রাজনীতিবিদ, কবি, সাহিত্যিক, বিজ্ঞানী, আইনজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, এবং অন্যান্য পেশাজীবী ব্যক্তিত্ব উঠে এসেছেন।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান অবস্থা

বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের বৃহত্তম এবং সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়। এতে ১৪টি অনুষদ, ৭৯টি বিভাগ, ২৬টি ইনস্টিটিউট, ৬টি গবেষণা কেন্দ্র এবং ৬টি আবাসিক হল রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে প্রায় ৩০,০০০ শিক্ষার্থী এবং ২,৫০০ শিক্ষক কর্মরত রয়েছে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

আরো পড়ুনঃ  আরিশা আয়াত নামের অর্থ কি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। এটি বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করা যায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের তথা পূর্ব বাংলার প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯২১ সালের ১লা জুলাই এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়। পূর্ববঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান হল একটি মুসলমান মধ্যবিত্ত সমাজ সৃষ্টি করা।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রেক্ষাপট

১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গের পর ঢাকাকে পূর্ব বাংলা ও আসামের রাজধানী করা হয়। এই সময় পূর্ব বাংলার মুসলমান নেতারা একটি স্বতন্ত্র বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন। তারা মনে করতেন যে, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় হিন্দুদের নিয়ন্ত্রণাধীন এবং তারা পূর্ব বাংলার মুসলমানদের চাহিদা পূরণ করতে পারে না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করেন মূলত পশ্চিমবঙ্গের হিন্দু নেতারা। তারা মনে করতেন যে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করলে পূর্ব বাংলার মুসলমানরা বেশি সুযোগ-সুবিধা পাবে। এতে পশ্চিমবঙ্গের হিন্দুদের ক্ষতি হবে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা

১৯১২ সালে লর্ড হার্ডিঞ্জ ঢাকায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি দেন। এরপর ১৯১৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাস হয়। এই আইনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকার সরবরাহ করবে।

১৯১৭ সালে গঠিত স্যাডলার কমিশন বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি সম্পর্কে একটি প্রতিবেদন দেয়। এই প্রতিবেদনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকারের কাছ থেকে সরবরাহ করা হবে।

১৯২০ সালের ১৩ মার্চ ভারতীয় আইনসভা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন (অ্যাক্ট নং ১৩) পাস করে। এই আইনে বলা হয় যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় জমি সরকার সরবরাহ করবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্বোধন

১৯২১ সালের ১লা জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। তিনটি অনুষদ, ১২টি বিভাগ, ৬০ জন শিক্ষক, ৮৪৭ জন ছাত্রছাত্রী ও তিনটি আবাসিক হল (সলিমুল্লাহ, জগন্নাথ, শহীদুল্লাহ হল) নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি যাত্রা শুরু করে।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবদান

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদী চেতনার বিকাশে এবং স্বাধীনতা সংগ্রামে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনেক খ্যাতিমান শিক্ষাবিদ, রাজনীতিবিদ, কবি, সাহিত্যিক, বিজ্ঞানী, আইনজীবী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, এবং অন্যান্য পেশাজীবী ব্যক্তিত্ব উঠে এসেছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান অবস্থা

বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের বৃহত্তম এবং সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়। এতে ১৪টি অনুষদ, ৭৯টি বিভাগ, ২৬টি ইনস্টিটিউট, ৬টি গবেষণা কেন্দ্র এবং ৬টি আবাসিক হল রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে প্রায় ৩০,০০০ শিক্ষার্থী এবং ২,৫০০ শিক্ষক কর্মরত রয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। এটি বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করা যায়।ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবে প্রতিষ্ঠিত হয়

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top