জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

Table of Contents

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ একটি জ্যোতিষশাস্ত্রীয় ধারণা। এই ধারণা অনুসারে, দুজন ব্যক্তির জন্ম তারিখের উপর ভিত্তি করে তাদের বিবাহের সামঞ্জস্য বিচার করা যেতে পারে। জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহের সামঞ্জস্য বিচার করার জন্য বিভিন্ন পদ্ধতি রয়েছে। এর মধ্যে একটি পদ্ধতি হল কুষ্টি বিচার। কুষ্টি হল একজন ব্যক্তির জন্মের সময়ের জ্যোতিষিক অবস্থার একটি বিবরণ। কুষ্টি বিচারের মাধ্যমে একজন জ্যোতিষী দুজন ব্যক্তির কুষ্টির মধ্যে সামঞ্জস্য বিচার করতে পারেন।

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহের সামঞ্জস্য বিচারের আরেকটি পদ্ধতি হল সংখ্যতত্ত্ব। সংখ্যতত্ত্বের মাধ্যমে একজন ব্যক্তির জন্ম তারিখের সংখ্যাগত মান নির্ণয় করা হয়। এরপর এই সংখ্যাগত মানের উপর ভিত্তি করে ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব এবং স্বভাব বিচার করা হয়। সংখ্যতত্ত্বের মাধ্যমেও দুজন ব্যক্তির মধ্যে সামঞ্জস্য বিচার করা যেতে পারে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহের সামঞ্জস্য বিচার একটি জনপ্রিয় ধারণা। অনেকেই বিশ্বাস করেন যে এই ধারণাটি সঠিক এবং এর মাধ্যমে দুজন ব্যক্তির বিবাহের সামঞ্জস্য বিচার করা সম্ভব। তবে, এই ধারণার বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। এটি একটি জ্যোতিষশাস্ত্রীয় ধারণা যা শুধুমাত্র বিশ্বাসের উপর নির্ভর করে।

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহের সামঞ্জস্য বিচারের কিছু সুবিধা রয়েছে। এই পদ্ধতির মাধ্যমে দুজন ব্যক্তির মধ্যে সামঞ্জস্য বিচার করা সহজ। এটি দুজন ব্যক্তির সম্পর্কের ভিত্তি শক্তিশালী করতে সাহায্য করতে পারে। তবে, এই পদ্ধতির কিছু অসুবিধাও রয়েছে। এই পদ্ধতিটি অনেক ক্ষেত্রে ভুল হতে পারে। এছাড়াও, এই পদ্ধতিটি অনেকেই বিশ্বাস করে না।

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহের সামঞ্জস্য বিচার একটি ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। কেউ যদি এই পদ্ধতিটি বিশ্বাস করে এবং এর মাধ্যমে তার বিবাহের সামঞ্জস্য বিচার করতে চায়, তাহলে সে করতে পারে। তবে, এই পদ্ধতির উপর নির্ভর করা ছাড়াও অন্য বিষয়গুলিও বিবেচনা করা উচিত। দুজন ব্যক্তির মধ্যে ভালো বোঝাপড়া, ভালোবাসা এবং বিশ্বাসের সম্পর্ক থাকলে তাদের বিবাহ সুখী হবে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিয়ের বছর হিসাব

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিয়ের বছর হিসাব করার জন্য একটি সহজ পদ্ধতি হল সংখ্যতত্ত্ব। এই পদ্ধতির মাধ্যমে একজন ব্যক্তির জন্ম তারিখের সংখ্যাগত মান নির্ণয় করা হয়। এরপর এই সংখ্যাগত মানের উপর ভিত্তি করে ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব এবং স্বভাব বিচার করা হয়। সংখ্যতত্ত্বের মাধ্যমেও দুজন ব্যক্তির মধ্যে সামঞ্জস্য বিচার করা যেতে পারে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

আরো পড়ুনঃ  বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ

জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিয়ের বছর হিসাব করার জন্য নিম্নলিখিত ধাপগুলি অনুসরণ করুন:

  1. প্রথমে, বর এবং কনের জন্ম তারিখের সংখ্যাগত মান নির্ণয় করুন।
  2. এরপর, বর এবং কনের সংখ্যাগত মান যোগ করুন।
  3. প্রাপ্ত যোগফলকে 9 দিয়ে ভাগ করুন।
  4. ভাগফলের ভাগশেষ হল বিয়ের বছর।

উদাহরণস্বরূপ, ধরুন বর এবং কনের জন্ম তারিখ যথাক্রমে 10-01-1990 এবং 20-02-1991।

বরের জন্ম তারিখের সংখ্যাগত মান: 1 + 0 + 0 + 1 + 9 + 9 + 0 = 20 কনের জন্ম তারিখের সংখ্যাগত মান: 2 + 0 + 0 + 2 + 9 + 1 = 14

বর এবং কনের সংখ্যাগত মান যোগফল: 20 + 14 = 34

34 কে 9 দিয়ে ভাগ করলে ভাগফল হয় 3 এবং ভাগশেষ হয় 7।

সুতরাং, এই উদাহরণে বর এবং কনের বিয়ের বছর হল 2007।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

এই পদ্ধতিটি শুধুমাত্র একটি ধারণা। এটি একটি বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি নয়। এই পদ্ধতির উপর নির্ভর করা ছাড়াও অন্যান্য বিষয়গুলিও বিবেচনা করা উচিত। দুজন ব্যক্তির মধ্যে ভালো বোঝাপড়া, ভালোবাসা এবং বিশ্বাসের সম্পর্ক থাকলে তাদের বিবাহ সুখী হবে।

জন্ম তারিখ অনুযায়ী কুষ্ঠি

জন্ম তারিখ অনুযায়ী কুষ্ঠি হল একজন ব্যক্তির জন্মের সময়ের জ্যোতিষিক অবস্থার একটি বিবরণ। এই বিবরণটি একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব, স্বভাব, এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে তথ্য প্রদান করে।

জন্ম তারিখ অনুযায়ী কুষ্ঠি তৈরি করার জন্য, একজন জ্যোতিষী প্রথমে ব্যক্তির জন্ম তারিখ, সময়, এবং স্থান নির্ণয় করেন। এরপর এই তথ্যগুলি ব্যবহার করে তিনি একটি জ্যোতিষিক চার্ট তৈরি করেন। এই চার্টে, গ্রহগুলির অবস্থান, রাশিচক্রের চিহ্নগুলি, এবং অন্যান্য জ্যোতিষিক বিষয়গুলি দেখানো থাকে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

জন্ম তারিখ অনুযায়ী কুষ্ঠি বিচারের মাধ্যমে একজন জ্যোতিষী একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব এবং স্বভাব সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ, একজন জ্যোতিষী কুষ্ঠি বিচারের মাধ্যমে একজন ব্যক্তির বুদ্ধিমত্তা, আবেগ, কর্মজীবন, এবং সম্পর্কের সম্ভাবনা সম্পর্কে তথ্য প্রদান করতে পারেন।

জন্ম তারিখ অনুযায়ী কুষ্ঠি বিচার একটি জনপ্রিয় ধারণা। অনেকেই বিশ্বাস করেন যে এই ধারণাটি সঠিক এবং এর মাধ্যমে একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানা সম্ভব। তবে, এই ধারণার বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। এটি একটি জ্যোতিষশাস্ত্রীয় ধারণা যা শুধুমাত্র বিশ্বাসের উপর নির্ভর করে।

আরো পড়ুনঃ  বন্ধুত্ব নিয়ে ক্যাপশন জন্মদিনের

জন্ম তারিখ অনুযায়ী কুষ্ঠি বিচারের কিছু সুবিধা রয়েছে। এই পদ্ধতির মাধ্যমে একজন ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে কিছু ধারণা পাওয়া যেতে পারে। এটি একজন ব্যক্তির নিজের সম্পর্কে আরও ভালোভাবে বুঝতে সাহায্য করতে পারে। তবে, এই পদ্ধতির কিছু অসুবিধাও রয়েছে। এই পদ্ধতিটি অনেক ক্ষেত্রে ভুল হতে পারে। এছাড়াও, এই পদ্ধতিটি অনেকেই বিশ্বাস করে না।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

জন্ম তারিখ অনুযায়ী কুষ্ঠি বিচার একটি ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। কেউ যদি এই পদ্ধতিটি বিশ্বাস করে এবং এর মাধ্যমে তার ব্যক্তিত্ব এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে জানতে চায়, তাহলে সে করতে পারে। তবে, এই পদ্ধতির উপর নির্ভর করা ছাড়াও অন্যান্য বিষয়গুলিও বিবেচনা করা উচিত। একজন ব্যক্তির নিজের অভিজ্ঞতা এবং পর্যবেক্ষণও তার ব্যক্তিত্ব এবং ভবিষ্যৎ সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করতে পারে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

বিবাহ যোগ

বিবাহ যোগ হল জ্যোতিষশাস্ত্রের একটি ধারণা। এই ধারণা অনুসারে, দুজন ব্যক্তির জন্ম কুষ্টির মধ্যে কিছু নির্দিষ্ট যোগ বিদ্যমান থাকলে তাদের মধ্যে বিবাহের সম্ভাবনা বেশি থাকে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

বিবাহ যোগের বিভিন্ন ধরনের রয়েছে। এর মধ্যে কিছু সাধারণ বিবাহ যোগ হল:

  • সূর্য যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে সূর্য একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব এবং ভালো বোঝাপড়া থাকে।
  • চন্দ্র যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে চন্দ্র একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে ভালোবাসা, স্নেহ, এবং সহানুভূতি থাকে।
  • মঙ্গল যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে মঙ্গল একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে উদ্যম, সাহস, এবং কর্মশক্তি থাকে।
  • বুধ যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে বুধ একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে ভালো যোগাযোগ, বোঝাপড়া, এবং বুদ্ধিমত্তা থাকে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ
  • বৃহস্পতি যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে বৃহস্পতি একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে জ্ঞান, বুদ্ধিমত্তা, এবং সৌভাগ্য থাকে।
  • শুক্র যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে শুক্র একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে ভালোবাসা, স্নেহ, এবং সুখ থাকে।
  • শনি যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে শনি একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে পরিশ্রম, ধৈর্য, এবং শক্তি থাকে।
  • রাহু যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে রাহু একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে আবেগপ্রবণতা, অস্থিরতা, এবং ঝুঁকি নেওয়ার প্রবণতা থাকে।
  • কেতু যোগ: বর এবং কনের জন্ম কুষ্টিতে কেতু একই রাশিতে থাকলে এই যোগ গঠিত হয়। এই যোগ বিদ্যমান থাকলে বর এবং কনের মধ্যে আধ্যাত্মিকতা, স্বপ্নদর্শিতা, এবং রহস্যময়তা থাকে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ
আরো পড়ুনঃ  আমাদের বিদ্যালয় রচনা ৩য় শ্রেণি

বিবাহ যোগের উপর ভিত্তি করে বিবাহের সম্ভাবনা বিচার করা হয়। তবে, এটি মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে বিবাহ যোগ শুধুমাত্র একটি সম্ভাবনা। বিবাহের জন্য ভালো বোঝাপড়া, ভালোবাসা, এবং বিশ্বাসের সম্পর্ক থাকা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

বিবাহ যোগের কিছু সুবিধা রয়েছে। এই পদ্ধতির মাধ্যমে বিবাহের সম্ভাবনা সম্পর্কে কিছু ধারণা পাওয়া যেতে পারে। এটি বিবাহের সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করতে পারে। তবে, এই পদ্ধতির কিছু অসুবিধাও রয়েছে। এই পদ্ধতিটি অনেক ক্ষেত্রে ভুল হতে পারে। এছাড়াও, এই পদ্ধতিটি অনেকেই বিশ্বাস করে না।

বিবাহ যোগ একটি ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। কেউ যদি এই পদ্ধতিটি বিশ্বাস করে এবং এর মাধ্যমে তার বিবাহের সম্ভাবনা সম্পর্কে জানতে চায়, তাহলে সে করতে পারে। তবে, এই পদ্ধতির উপর নির্ভর করা ছাড়াও অন্যান্য বিষয়গুলিও বিবেচনা করা উচিত। দুজন ব্যক্তির মধ্যে ভালো বোঝাপড়া, ভালোবাসা, এবং বিশ্বাসের সম্পর্ক থাকলে তাদের বিবাহ সুখী হবে।জন্ম তারিখ অনুযায়ী বিবাহ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top