আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটি আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ রচিত একটি বিখ্যাত কবিতা। এটি বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবিতা হিসেবে বিবেচিত হয়। কবিতাটিতে কবি বাংলার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং বাঙালি জাতির অহংকার ও সাহসিকতার কথা তুলে ধরেছেন।

কবিতাটির বিষয়বস্তু:

কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন।

কবিতাটির মূল বক্তব্য:

কবিতাটির মূল বক্তব্য হলো, বাঙালি জাতির ইতিহাস গৌরবময়। বাঙালিরা হাজার বছরের ইতিহাসে বহু প্রতিকূলতার সম্মুখীন হয়েছে, কিন্তু তারা কখনো থেমে থাকেনি। তারা তাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করেছে। কবি এই ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য:

  • কবিতাটিতে কবি বাংলার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং বাঙালি জাতির অহংকার ও সাহসিকতার কথা তুলে ধরেছেন।
  • কবিতাটিতে কবি ভাষার শক্তিশালী ব্যবহার করেছেন।
  • কবিতার ছন্দ ও ছবি আঁকার ক্ষমতা অত্যন্ত উচ্চ।

কবিতাটির MCQ প্রশ্ন ও উত্তর:

১. কবিতাটির রচয়িতা কে?

  • উত্তর: আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

২. কবিতাটির মূল বিষয়বস্তু কী?

  • উত্তর: বাংলার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং বাঙালি জাতির অহংকার ও সাহসিকতা

৩. কবিতাটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য কোনটি?

  • উত্তর: ভাষার শক্তিশালী ব্যবহার

৪. কবিতাটির লাইন ‘আমি কিংবদন্তির কথা বলছি’ এর অর্থ কী?

  • উত্তর: কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

৫. কবিতাটির শেষ লাইন ‘আমার হৃদয়ের কিংবদন্তি’ এর অর্থ কী?

  • উত্তর: কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা তার হৃদয়ে ধারণ করেছেন। এই ত্যাগ ও সংগ্রামের স্মৃতি তাকে সাহস ও অনুপ্রেরণা দেয়।

এছাড়াও, কবিতাটির উপর আরও কিছু MCQ প্রশ্ন নিম্নরূপ:

৬. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষদের কী বলা হয়েছে?

  • উত্তর: দাস, কিন্তু সাহসী ও স্বাধীনচেতা

৭. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষরা কীভাবে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন?

  • উত্তর: পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে

৮. কবিতাটিতে কবির আহ্বান কী?

  • উত্তর: ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার

৯. কবিতাটির ছন্দ কী?

  • উত্তর: মুক্তক ছন্দ

১০. কবিতাটির ভাষা কী?

  • উত্তর: সহজ ও সরল

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতার mcq pdf download

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতার MCQ প্রশ্ন ও উত্তর

১. কবিতাটির রচয়িতা কে?

  • উত্তর: আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

২. কবিতাটির মূল বিষয়বস্তু কী?

  • উত্তর: বাংলার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং বাঙালি জাতির অহংকার ও সাহসিকতা

৩. কবিতাটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য কোনটি?

  • উত্তর: ভাষার শক্তিশালী ব্যবহার

৪. কবিতাটির লাইন ‘আমি কিংবদন্তির কথা বলছি’ এর অর্থ কী?

  • উত্তর: কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

৫. কবিতাটির শেষ লাইন ‘আমার হৃদয়ের কিংবদন্তি’ এর অর্থ কী?

  • উত্তর: কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা তার হৃদয়ে ধারণ করেছেন। এই ত্যাগ ও সংগ্রামের স্মৃতি তাকে সাহস ও অনুপ্রেরণা দেয়।

৬. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষদের কী বলা হয়েছে?

  • উত্তর: দাস, কিন্তু সাহসী ও স্বাধীনচেতা

৭. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষরা কীভাবে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন?

  • উত্তর: পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে

৮. কবিতাটিতে কবির আহ্বান কী?

  • উত্তর: ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার

৯. কবিতাটির ছন্দ কী?

  • উত্তর: মুক্তক ছন্দ

১০. কবিতাটির ভাষা কী?

  • উত্তর: সহজ ও সরল

এছাড়াও, কবিতাটির উপর আরও কিছু MCQ প্রশ্ন নিম্নরূপ:

১১. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষদের কীভাবে বর্ণনা করা হয়েছে?

  • উত্তর: তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী, স্বাধীনচেতা, কৃষক, কবি, যোদ্ধা, পতিত জমি চাষী, শ্রমিক।

১২. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষদের কী কী গুণাবলী বর্ণনা করা হয়েছে?

  • উত্তর: তাঁরা ছিলেন সাহসী, স্বাধীনচেতা, পরিশ্রমী, কঠোর পরিশ্রমী, সংগ্রামী, ত্যাগী, দেশপ্রেমিক।

১৩. কবিতাটিতে কবি কীভাবে তার পূর্বপুরুষদের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন?

  • উত্তর: তিনি তাদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন যে তারা তার হৃদয়ের কিংবদন্তি।
আরো পড়ুনঃ  ঢাকা থেকে সিলেট বিমান ভাড়া কত

১৪. কবিতাটিতে কবি কীভাবে বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির গুরুত্ব তুলে ধরেছেন?

  • উত্তর: তিনি বলেছেন যে তার পূর্বপুরুষরা বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করেছেন। তিনি বলেছেন যে এই ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখা আমাদের দায়িত্ব।

১৫. কবিতাটিতে কবির আহ্বান কীভাবে বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামের সাথে সম্পর্কিত?

  • উত্তর: কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে তাদের অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন যে আমরাও তাদের মতো সাহসী ও স্বাধীনচেতা হওয়া উচিত। আমরাও আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করা উচিত।

**এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়ে আপনি কবিতাটির মূল

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন-১

প্রশ্ন: কবিতাটির কবিতার মূল বক্তব্য কী?

উত্তর:

কবিতাটির মূল বক্তব্য হলো, বাঙালি জাতির ইতিহাস গৌরবময়। বাঙালিরা হাজার বছরের ইতিহাসে বহু প্রতিকূলতার সম্মুখীন হয়েছে, কিন্তু তারা কখনো থেমে থাকেনি। তারা তাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করেছে। কবি এই ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন।

কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে আমাদেরও তাদের মতো সাহসী ও স্বাধীনচেতা হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন যে আমরাও আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করা উচিত।

সৃজনশীল প্রশ্ন-২

প্রশ্ন: কবিতাটির কবিতার সাথে তোমার জীবনের কোনো ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার মিল আছে কি?

উত্তর:

হ্যাঁ, কবিতাটির কবিতার সাথে আমার জীবনের কিছু ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার মিল আছে। আমার পূর্বপুরুষরাও ছিলেন দাস। তারা কঠোর পরিশ্রম করে নিজের জীবন গড়ে তুলেছিলেন। তারা আমাদের শিক্ষা ও সংস্কৃতির জন্য অনেক কিছু করেছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

আমি নিজেও একজন কবি। আমি কবিতা লিখে আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার চেষ্টা করি। আমি মনে করি, কবিতা আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দিতে পারে।

কবিতাটির কবি যেভাবে তার পূর্বপুরুষদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন, আমিও সেভাবে আমার পূর্বপুরুষদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা করি। আমি মনে করি, তারা আমাদের জন্য অনেক কিছু করেছেন। আমরা তাদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা ভুলে গেলে চলবে না।

সৃজনশীল প্রশ্ন-৩

প্রশ্ন: কবিতাটির কবিতার প্রভাব আমাদের সমাজে কী হতে পারে?

উত্তর:

কবিতাটির কবিতার প্রভাব আমাদের সমাজে অনেক হতে পারে। কবিতাটি আমাদেরকে আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে শেখাবে। এটি আমাদেরকে সাহসী ও স্বাধীনচেতা হতে শেখাবে। এটি আমাদেরকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শেখাবে। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটি আমাদের সমাজে একটি ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে। এটি আমাদেরকে একটি সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে সাহায্য করতে পারে।

কবিতাটি আমাদেরকে নিম্নলিখিত বিষয়গুলো শেখাতে পারে:

  • আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া
  • সাহসী ও স্বাধীনচেতা হওয়া
  • অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো
  • একটি সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে ভূমিকা রাখা

আমি আশা করি, কবিতাটি আমাদের সমাজে একটি ইতিবাচক পরিবর্তন আনবে।

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq প্রথম আলো

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটির উপর কিছু MCQ প্রশ্ন ও উত্তর নিম্নরূপ:

১. কবিতাটির রচয়িতা কে?

  • উত্তর: আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

২. কবিতাটির মূল বিষয়বস্তু কী?

  • উত্তর: বাংলার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং বাঙালি জাতির অহংকার ও সাহসিকতা

৩. কবিতাটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য কোনটি?

  • উত্তর: ভাষার শক্তিশালী ব্যবহার

৪. কবিতাটির লাইন ‘আমি কিংবদন্তির কথা বলছি’ এর অর্থ কী?

  • উত্তর: কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

৫. কবিতাটির শেষ লাইন ‘আমার হৃদয়ের কিংবদন্তি’ এর অর্থ কী?

  • উত্তর: কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা তার হৃদয়ে ধারণ করেছেন। এই ত্যাগ ও সংগ্রামের স্মৃতি তাকে সাহস ও অনুপ্রেরণা দেয়।

৬. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষদের কী বলা হয়েছে?

  • উত্তর: দাস, কিন্তু সাহসী ও স্বাধীনচেতা

৭. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষরা কীভাবে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন?

  • উত্তর: পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে

৮. কবিতাটিতে কবির আহ্বান কী?

  • উত্তর: ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার
আরো পড়ুনঃ  তৈ তৈ তৈ তৈ আমার বৈয়ম পাখি কই গানের রিলিক্স

৯. কবিতাটির ছন্দ কী?

  • উত্তর: মুক্তক ছন্দ

১০. কবিতাটির ভাষা কী?

  • উত্তর: সহজ ও সরল

প্রথম আলোর পরীক্ষার জন্য কিছু নির্দিষ্ট প্রশ্ন:

১. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষদের কীভাবে বর্ণনা করা হয়েছে?

  • উত্তর: তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী, স্বাধীনচেতা, কৃষক, কবি, যোদ্ধা, পতিত জমি চাষী, শ্রমিক।

২. কবিতাটিতে কবির পূর্বপুরুষদের কী কী গুণাবলী বর্ণনা করা হয়েছে?

  • উত্তর: তাঁরা ছিলেন সাহসী, স্বাধীনচেতা, পরিশ্রমী, কঠোর পরিশ্রমী, সংগ্রামী, ত্যাগী, দেশপ্রেমিক।

৩. কবিতাটিতে কবি কীভাবে তার পূর্বপুরুষদের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন?

  • উত্তর: তিনি তাদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন যে তারা তার হৃদয়ের কিংবদন্তি।

৪. কবিতাটিতে কবি কীভাবে বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির গুরুত্ব তুলে ধরেছেন?

  • উত্তর: তিনি বলেছেন যে তার পূর্বপুরুষরা বাংলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করেছেন। তিনি বলেছেন যে এই ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখা আমাদের দায়িত্ব।

৫. কবিতাটিতে কবির আহ্বান কীভাবে বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামের সাথে সম্পর্কিত?

  • উত্তর: কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে তাদের অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন যে আমরাও তাদের মতো সাহসী ও স্বাধীনচেতা হওয়া উচিত। আমরাও আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করা উচিত। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়ে আপনি কবিতাটির মূল ব

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটি কোন ছন্দে রচিত

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটি মুক্তক ছন্দে রচিত। মুক্তক ছন্দ হলো এমন ছন্দ যেখানে কোন নির্দিষ্ট ছন্দসংখ্যা, মাত্রা, অক্ষরবৃত্ত ইত্যাদির বাধ্যবাধকতা নেই। কবিতার প্রতিটি চরণের শব্দসংখ্যা ও মাত্রা ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন।

কবিতার ছন্দ মুক্ত হলেও, এতে ছন্দের ছন্দের অনুভূতি রয়েছে। কবিতার শব্দচয়ন, ভাবপ্রকাশ, ছবি আঁকার ক্ষমতা ইত্যাদির কারণে কবিতাটি ছন্দময় হয়ে উঠেছে।

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতায় মুক্তির পূর্ব শর্ত কি

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতায় মুক্তির পূর্বশর্ত হলো সংগ্রাম। কবিতায় কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন।

কবিতায় কবি বলেছেন, “যে কবিতা শুনতে জানে না সে ঝড়ের আর্তনাদ শুনবে।” অর্থাৎ, যে সংগ্রামের কবিতা শুনতে জানে না, সে নিপীড়নের অত্যাচার সহ্য করবে। কবি আরও বলেছেন, “যে কবিতা শুনতে জানে না সে দিগন্তের অধিকার থেকে বঞ্চিত হবে।” অর্থাৎ, যে সংগ্রামের কবিতা শুনতে জানে না, সে স্বাধীনতার স্বাদ পাবে না। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

সুতরাং, আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতায় মুক্তির পূর্বশর্ত হলো সংগ্রাম। সংগ্রামের মাধ্যমেই আমরা নিপীড়ন থেকে মুক্তি পেতে পারি এবং স্বাধীনতা অর্জন করতে পারি।

কবিতার কিছু নির্দিষ্ট চরণে এই বিষয়টি আরও স্পষ্টভাবে ফুটে উঠেছে। যেমন:

“যে কর্ষণ করে শস্যের সম্ভার তাকে সমৃদ্ধ করবে।”
“যে মৎস্য লালন করে প্রবহমান নদী তাকে পুরস্কৃত করবে।”
“যে গাভীর পরিচর্যা করে জননীর আশীর্বাদ তাকে দীর্ঘায়ু করবে।”
“যে লৌহখণ্ডকে প্রজ্বলিত করে ইস্পাতের তরবারি তাকে সশস্ত্র করবে।”

এই চরণগুলোতে কবি বলেছেন যে, যে পরিশ্রম করে, সে সফল হবে। যে লড়াই করে, সে জিতবে। সুতরাং, মুক্তির জন্যও আমাদেরকে সংগ্রাম করতে হবে।

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি অনুধাবন প্রশ্ন

কবিতাটির মূল বক্তব্য

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটিতে কবি আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন।

কবিতাটির মূল বক্তব্য হলো, বাঙালি জাতির ইতিহাস গৌরবময়। বাঙালিরা হাজার বছরের ইতিহাসে বহু প্রতিকূলতার সম্মুখীন হয়েছে, কিন্তু তারা কখনো থেমে থাকেনি। তারা তাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করেছে। কবি এই ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতার উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হলো:

  • ভাষার শক্তিশালী ব্যবহার: কবিতার ভাষা সহজ ও সরল, কিন্তু তাতে শক্তি ও ভাবপ্রকাশের অভাব নেই। কবিতার ছন্দ মুক্ত হলেও, তাতে ছন্দের ছন্দের অনুভূতি রয়েছে।
  • অঙ্কিত চিত্র: কবিতার প্রতিটি চরণে একটি সুন্দর ও স্পষ্ট চিত্র ফুটে উঠেছে। এই চিত্রগুলো কবিতাকে আরও প্রাণবন্ত ও আকর্ষণীয় করে তুলেছে।
  • ভাবের গভীরতা: কবিতাটিতে বাঙালি জাতির ইতিহাস ও সংস্কৃতির গভীর উপলব্ধি ফুটে উঠেছে। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর
আরো পড়ুনঃ  জন্মদিনের শুভেচ্ছা স্ট্যাটাস ভাই ফানি

কবিতাটির প্রভাব

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটি আমাদেরকে আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে শেখাবে। এটি আমাদেরকে সাহসী ও স্বাধীনচেতা হতে শেখাবে। এটি আমাদেরকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শেখাবে। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটি আমাদের সমাজে একটি ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে। এটি আমাদেরকে একটি সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে সাহায্য করতে পারে।

অনুধাবন প্রশ্ন

প্রশ্ন-১: কবিতাটির মূল বক্তব্য কী?

উত্তর: কবিতাটির মূল বক্তব্য হলো, বাঙালি জাতির ইতিহাস গৌরবময়। বাঙালিরা হাজার বছরের ইতিহাসে বহু প্রতিকূলতার সম্মুখীন হয়েছে, কিন্তু তারা কখনো থেমে থাকেনি। তারা তাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করেছে। কবি এই ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

প্রশ্ন-২: কবিতায় কবির পূর্বপুরুষদের কীভাবে বর্ণনা করা হয়েছে?

উত্তর: কবিতায় কবির পূর্বপুরুষদের সাহসী, স্বাধীনচেতা, কৃষক, কবি, যোদ্ধা, পতিত জমি চাষী, শ্রমিক হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। তারা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন।

প্রশ্ন-৩: কবি কীভাবে তার পূর্বপুরুষদের প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন?

উত্তর: কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন যে তারা তার হৃদয়ের কিংবদন্তি। তিনি তাদেরকে কবিতা শুনতে জানতে বলেছেন, কারণ কবিতা মুক্তির গান। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

প্রশ্ন-৪: কবিতাটির শেষ লাইন “আমার হৃদয়ের কিংবদন্তি” এর অর্থ কী?

উত্তর: কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা তার হৃদয়ে ধারণ করেছেন।

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি ব্যাখ্যা

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি কবিতাটি আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ রচিত একটি বিখ্যাত কবিতা। কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তাঁরা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। কবি তাদের এই ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা স্মরণ করে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা বলেছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটির মূল বক্তব্য

কবিতাটির মূল বক্তব্য হলো, বাঙালি জাতির ইতিহাস গৌরবময়। বাঙালিরা হাজার বছরের ইতিহাসে বহু প্রতিকূলতার সম্মুখীন হয়েছে, কিন্তু তারা কখনো থেমে থাকেনি। তারা তাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির জন্য সংগ্রাম করেছে। কবি এই ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য

কবিতাটির উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হলো:

  • ভাষার শক্তিশালী ব্যবহার: কবিতার ভাষা সহজ ও সরল, কিন্তু তাতে শক্তি ও ভাবপ্রকাশের অভাব নেই। কবিতার ছন্দ মুক্ত হলেও, তাতে ছন্দের ছন্দের অনুভূতি রয়েছে।
  • অঙ্কিত চিত্র: কবিতার প্রতিটি চরণে একটি সুন্দর ও স্পষ্ট চিত্র ফুটে উঠেছে। এই চিত্রগুলো কবিতাকে আরও প্রাণবন্ত ও আকর্ষণীয় করে তুলেছে।
  • ভাবের গভীরতা: কবিতাটিতে বাঙালি জাতির ইতিহাস ও সংস্কৃতির গভীর উপলব্ধি ফুটে উঠেছে।

কবিতাটির প্রভাব

কবিতাটি আমাদেরকে আমাদের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে শেখাবে। এটি আমাদেরকে সাহসী ও স্বাধীনচেতা হতে শেখাবে। এটি আমাদেরকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে শেখাবে।

কবিতাটি আমাদের সমাজে একটি ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে। এটি আমাদেরকে একটি সুন্দর ও সমৃদ্ধ সমাজ গঠনে সাহায্য করতে পারে। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটির ব্যাখ্যা

কবিতাটিতে কবি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলেছেন। তিনি তাদেরকে “কিংবদন্তি” বলেছেন। কিংবদন্তি হলো এমন ঘটনা বা ব্যক্তি যা ইতিহাসে অমর হয়ে আছে। কবি তার পূর্বপুরুষদেরকে কিংবদন্তি বলেছেন কারণ তারা তাদের ত্যাগ ও সংগ্রামের মাধ্যমে বাঙালি জাতির ইতিহাসে অমর হয়ে আছেন।

কবিতার প্রথম চরণে কবি বলেছেন যে তিনি তার পূর্বপুরুষদের কথা বলতে চান। তিনি বলেন যে তারা ছিলেন দাস, কিন্তু তারা ছিলেন স্বাধীনচেতা। তারা পাহাড়-পর্বত অতিক্রম করে, রক্ত ঝরিয়ে, ত্যাগ-তিতিক্ষার মাধ্যমে বাংলার মাটিতে স্বাধীনতার বীজ বপন করেছিলেন। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

দ্বিতীয় চরণে কবি বলেছেন যে তার পূর্বপুরুষরা ছিলেন কৃষক, কবি, যোদ্ধা, পতিত জমি চাষী, শ্রমিক। তারা ছিলেন সাধারণ মানুষ, কিন্তু তারা ছিলেন সাহসী ও স্বাধীনচেতা। তারা বাংলার মাটিতে তাদের শ্রম, মেধা ও ত্যাগ দিয়ে গড়ে তুলেছিলেন।

তৃতীয় চরণে কবি বলেছেন যে তার পূর্বপুরুষরা ছিলেন কবিতা শুনতে জানতেন। তারা জানতেন যে কবিতা মুক্তির গান। তারা কবিতা শুনে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন এবং তারা স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করেছিলেন।

চতুর্থ চরণে কবি বলেছেন যে তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা তিনি তার হৃদয়ে ধারণ করেছেন। তিনি তাদেরকে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানান।

কবিতাটির শেষ লাইন “আমার হৃদয়ের কিংবদন্তি” এর অর্থ হলো কবি তার পূর্বপুরুষদের ত্যাগ ও সংগ্রামের কথা তার হৃদয়ে ধারণ করেছেন। তিনি তাদেরকে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানান। আমি কিংবদন্তির কথা বলছি mcq উত্তর

কবিতাটি

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top