আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

https://jobbd.org/%e0%a6%86%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a7%8b-%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a7%8b-%e0%a6%af%e0%a6%be%e0%a6%b9%e0%a6%be-%e0%a6%9a%e0%a6%be%e0%a6%af%e0%a6%bc-%e0%a6%b2%e0%a6%bf%e0%a6%b0/

আমারো পরানো যাহা চায়

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

আমারো পরানো যাহা চায় তুমি তাই, তুমি তাই গো।

তোমা ছাড়া আর এ জগতে মোর কেহ নাই কিছু নাই গো।

তুমি সুখ যদি নাহি পাও, যাও, সুখের সন্ধানে যাও,

আমি তোমারে পেয়েছি হৃদয়মাঝে, আর কিছু নাহি চাই গো।

আমি তোমার বিরহে রহিব বিলীন, তোমাতে করিব বাস,

দীর্ঘ দিবস, দীর্ঘ রজনী, দীর্ঘ বরষ মাস।

যদি আর কারে ভালোবাস, যদি আর ফিরে নাহি আস,

তবে, তুমি যাহা চাও, তাই যেন পাও, আমি যত দুখ পাই গো।

এই গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি বিখ্যাত প্রেমের গান। এটি একটি আবেগপ্রবণ গান যেখানে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করে। গানটিতে প্রেমিক বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার জীবনের সবকিছু। তিনি তার ছাড়া আর কিছুই চান না। তিনি তার জন্য সুখী হতে চান, এমনকি যদি সে অন্য কাউকে ভালবাসে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

গানটি সুন্দর সুর এবং গীতিকবিতার জন্য বিখ্যাত। এটি বাংলা ভাষার অন্যতম জনপ্রিয় প্রেমের গান। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

আমার পরান যাহা চায় lyrics in Bengali

আমার পরান যাহা চায়

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

আমারো পরানো যাহা চায় তুমি তাই, তুমি তাই গো।

তোমা ছাড়া আর এ জগতে মোর কেহ নাই কিছু নাই গো।

তুমি সুখ যদি নাহি পাও, যাও, সুখের সন্ধানে যাও,

আমি তোমারে পেয়েছি হৃদয়মাঝে, আর কিছু নাহি চাই গো।

আমি তোমার বিরহে রহিব বিলীন, তোমাতে করিব বাস,

দীর্ঘ দিবস, দীর্ঘ রজনী, দীর্ঘ বরষ মাস।

যদি আর কারে ভালোবাস, যদি আর ফিরে নাহি আস,

তবে, তুমি যাহা চাও, তাই যেন পাও, আমি যত দুখ পাই গো।

অনুবাদ:

আমার হৃদয় যা চায়, তুমি তাই, তুমি তাই।

তোমার ছাড়া এই জগতে আমার আর কেউ নেই, কিছুই নেই।

তুমি যদি সুখ না পাও, যাও, সুখের সন্ধানে যাও।

আমি তোমাকে পেয়েছি হৃদয়ের মাঝে, আর কিছুই চাই না।

আমি তোমার বিরহের মধ্যে বিলীন হয়ে রহবো, তোমাতেই বাস করব।

দীর্ঘ দিনে, দীর্ঘ রাতে, দীর্ঘ বৎসর মাস।

যদি অন্য কাউকে ভালবাস, যদি আর ফিরে না আস,

তবে, তুমি যা চাও, তাই যেন পাও, আমি যত দুঃখ পাই।

ব্যাখ্যা:

এই গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি বিখ্যাত প্রেমের গান। এটি একটি আবেগপ্রবণ গান যেখানে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করে। গানটিতে প্রেমিক বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার জীবনের সবকিছু। তিনি তার ছাড়া আর কিছুই চান না। তিনি তার জন্য সুখী হতে চান, এমনকি যদি সে অন্য কাউকে ভালবাসে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

গানের প্রথম দুই লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার হৃদয়ের একমাত্র আকাঙ্ক্ষা। তিনি তার ছাড়া অন্য কিছুই চান না।

তৃতীয় লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা সুখ না পায়, তাহলে সে তাকে যেতে দেবে। তিনি তার সুখই চান।

চতুর্থ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকাকে হৃদয়ের মাঝে পেয়েছেন। তিনি আর কিছুই চান না।

পঞ্চম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার বিরহের মধ্যে বিলীন হয়ে যাবেন। তিনি তার ছাড়া বাঁচতে পারবেন না।

আরো পড়ুনঃ  আর্জেন্টিনার রাজধানী কোথায়

ষষ্ঠ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার সাথে দীর্ঘদিন ধরে থাকতে চান।

সপ্তম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা অন্য কাউকে ভালবাসে, তাহলে সে তার জন্য সুখ কামনা করবে। এমনকি যদি তার এতে দুঃখ হয়।

এই গানটি বাংলা ভাষার অন্যতম জনপ্রিয় প্রেমের গান। এটি প্রেমের অমরতা এবং আত্মত্যাগের গান। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

আমারো পরানো যাহা চায় রবীন্দ্র সংগীত

আমারো পরানো যাহা চায় গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি বিখ্যাত প্রেমের গান। এটি মায়ার খেলা কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত। গানটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯১৩ সালে।

গানটিতে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার জীবনের সবকিছু। তিনি তার ছাড়া আর কিছুই চান না। তিনি তার জন্য সুখী হতে চান, এমনকি যদি সে অন্য কাউকে ভালবাসে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

গানের সুর এবং গীতিকবিতা অত্যন্ত সুন্দর। এটি বাংলা ভাষার অন্যতম জনপ্রিয় প্রেমের গান।

Image of আমারো পরানো যাহা চায় রবীন্দ্র সংগীত

গানটির প্রথম দুই লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার হৃদয়ের একমাত্র আকাঙ্ক্ষা। তিনি তার ছাড়া অন্য কিছুই চান না।

আমারো পরানো যাহা চায় তুমি তাই, তুমি তাই গো।

তোমা ছাড়া আর এ জগতে মোর কেহ নাই কিছু নাই গো।

তৃতীয় লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা সুখ না পায়, তাহলে সে তাকে যেতে দেবে। তিনি তার সুখই চান।

তুমি সুখ যদি নাহি পাও, যাও, সুখের সন্ধানে যাও।

চতুর্থ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকাকে হৃদয়ের মাঝে পেয়েছেন। তিনি আর কিছুই চান না।

আমি তোমারে পেয়েছি হৃদয়মাঝে, আর কিছু নাহি চাই গো।

পঞ্চম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার বিরহের মধ্যে বিলীন হয়ে যাবেন। তিনি তার ছাড়া বাঁচতে পারবেন না।

আমি তোমার বিরহে রহিব বিলীন, তোমাতে করিব বাস।

ষষ্ঠ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার সাথে দীর্ঘদিন ধরে থাকতে চান। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

দীর্ঘ দিবস, দীর্ঘ রজনী, দীর্ঘ বরষ মাস।

সপ্তম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা অন্য কাউকে ভালবাসে, তাহলে সে তার জন্য সুখ কামনা করবে। এমনকি যদি তার এতে দুঃখ হয়।

যদি আর কারে ভালোবাস, যদি আর ফিরে নাহি আস,

তবে, তুমি যাহা চাও, তাই যেন পাও, আমি যত দুখ পাই গো।

গানটি প্রেমের অমরতা এবং আত্মত্যাগের গান। এটি প্রেমিকের নিঃস্বার্থ ভালবাসার একটি অনন্য উদাহরণ। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

আমারো পরানো যাহা চায় কার লেখা

আমারো পরানো যাহা চায় গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি বিখ্যাত প্রেমের গান। এটি মায়ার খেলা কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত। গানটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯১৩ সালে।

গানটিতে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার জীবনের সবকিছু। তিনি তার ছাড়া আর কিছুই চান না। তিনি তার জন্য সুখী হতে চান, এমনকি যদি সে অন্য কাউকে ভালবাসে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

গানের সুর এবং গীতিকবিতা অত্যন্ত সুন্দর। এটি বাংলা ভাষার অন্যতম জনপ্রিয় প্রেমের গান।

সুতরাং, আমারো পরানো যাহা চায় গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা।

আমারো পরানো যাহা চায় স্বরলিপি

আমারো পরানো যাহা চায়

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

তাল: ত্রিতাল

আবর্তন: ১

স্বরলিপি:

আমারো পরানো যাহা চায় তুমি তাই, তুমি তাই গো।

Image of আমারো পরানো যাহা চায় স্বরলিপি

তোমা ছাড়া আর এ জগতে মোর কেহ নাই কিছু নাই গো।

আরো পড়ুনঃ  আমাকে বাড়ি যাওয়ার রাস্তা দেখাও

তুমি সুখ যদি নাহি পাও, যাও, সুখের সন্ধানে যাও।

আমি তোমারে পেয়েছি হৃদয়মাঝে, আর কিছু নাহি চাই গো।

আমি তোমার বিরহে রহিব বিলীন, তোমাতে করিব বাস।

দীর্ঘ দিবস, দীর্ঘ রজনী, দীর্ঘ বরষ মাস।

যদি আর কারে ভালোবাস, যদি আর ফিরে নাহি আস,

তবে, তুমি যাহা চাও, তাই যেন পাও, আমি যত দুখ পাই গো।

উল্লেখ্য যে, এই স্বরলিপিটি শুধুমাত্র একটি নির্দেশিকা। গানটি গাওয়ার সময়, আপনার নিজের মতো করে সুর এবং তাল পরিবর্তন করতে পারেন। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

আমার পরান যাহা চায় গানের প্রেক্ষাপট

আমারো পরানো যাহা চায় গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি বিখ্যাত প্রেমের গান। এটি মায়ার খেলা কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত। গানটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯১৩ সালে।

গানটির প্রেক্ষাপট সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে বলা কঠিন। তবে, ধারণা করা হয় যে গানটি রবীন্দ্রনাথের নিজের জীবনের একটি প্রেমের অভিজ্ঞতা থেকে অনুপ্রাণিত।

গানটিতে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার জীবনের সবকিছু। তিনি তার ছাড়া আর কিছুই চান না। তিনি তার জন্য সুখী হতে চান, এমনকি যদি সে অন্য কাউকে ভালবাসে।

গানের প্রথম দুই লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার হৃদয়ের একমাত্র আকাঙ্ক্ষা। তিনি তার ছাড়া অন্য কিছুই চান না। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

আমারো পরানো যাহা চায় তুমি তাই, তুমি তাই গো।

তোমা ছাড়া আর এ জগতে মোর কেহ নাই কিছু নাই গো।

তৃতীয় লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা সুখ না পায়, তাহলে সে তাকে যেতে দেবে। তিনি তার সুখই চান।

তুমি সুখ যদি নাহি পাও, যাও, সুখের সন্ধানে যাও।

চতুর্থ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকাকে হৃদয়ের মাঝে পেয়েছেন। তিনি আর কিছুই চান না।

আমি তোমারে পেয়েছি হৃদয়মাঝে, আর কিছু নাহি চাই গো।

পঞ্চম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার বিরহের মধ্যে বিলীন হয়ে যাবেন। তিনি তার ছাড়া বাঁচতে পারবেন না।

আমি তোমার বিরহে রহিব বিলীন, তোমাতে করিব বাস।

ষষ্ঠ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার সাথে দীর্ঘদিন ধরে থাকতে চান।

দীর্ঘ দিবস, দীর্ঘ রজনী, দীর্ঘ বরষ মাস।

সপ্তম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা অন্য কাউকে ভালবাসে, তাহলে সে তার জন্য সুখ কামনা করবে। এমনকি যদি তার এতে দুঃখ হয়।

যদি আর কারে ভালোবাস, যদি আর ফিরে নাহি আস,

তবে, তুমি যাহা চাও, তাই যেন পাও, আমি যত দুখ পাই গো।

গানটি প্রেমের অমরতা এবং আত্মত্যাগের গান। এটি প্রেমিকের নিঃস্বার্থ ভালবাসার একটি অনন্য উদাহরণ।

গানটির প্রেক্ষাপট সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে জানা না গেলেও, এটি রবীন্দ্রনাথের নিজের জীবনের একটি প্রেমের অভিজ্ঞতা থেকে অনুপ্রাণিত বলে মনে করা হয়। গানটিতে প্রেমিকের গভীর ভালবাসা এবং আত্মত্যাগের মনোভাব প্রকাশিত হয়েছে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

আমার পরান যাহা চায় গানের ইতিহাস

আমারো পরানো যাহা চায় গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি বিখ্যাত প্রেমের গান। এটি মায়ার খেলা কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত। গানটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯১৩ সালে।

গানটির ইতিহাস সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে বলা কঠিন। তবে, ধারণা করা হয় যে গানটি রবীন্দ্রনাথের নিজের জীবনের একটি প্রেমের অভিজ্ঞতা থেকে অনুপ্রাণিত।

গানটিতে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার জীবনের সবকিছু। তিনি তার ছাড়া আর কিছুই চান না। তিনি তার জন্য সুখী হতে চান, এমনকি যদি সে অন্য কাউকে ভালবাসে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

আরো পড়ুনঃ  ভারতের প্রধানমন্ত্রীর পুরো নাম কি

গানটির প্রথম দুই লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার হৃদয়ের একমাত্র আকাঙ্ক্ষা। তিনি তার ছাড়া অন্য কিছুই চান না।

আমারো পরানো যাহা চায় তুমি তাই, তুমি তাই গো।

তোমা ছাড়া আর এ জগতে মোর কেহ নাই কিছু নাই গো।

তৃতীয় লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা সুখ না পায়, তাহলে সে তাকে যেতে দেবে। তিনি তার সুখই চান।

তুমি সুখ যদি নাহি পাও, যাও, সুখের সন্ধানে যাও।

চতুর্থ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকাকে হৃদয়ের মাঝে পেয়েছেন। তিনি আর কিছুই চান না।

আমি তোমারে পেয়েছি হৃদয়মাঝে, আর কিছু নাহি চাই গো।

পঞ্চম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার বিরহের মধ্যে বিলীন হয়ে যাবেন। তিনি তার ছাড়া বাঁচতে পারবেন না।

আমি তোমার বিরহে রহিব বিলীন, তোমাতে করিব বাস।

ষষ্ঠ লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে তিনি তার প্রেমিকার সাথে দীর্ঘদিন ধরে থাকতে চান।

দীর্ঘ দিবস, দীর্ঘ রজনী, দীর্ঘ বরষ মাস।

সপ্তম লাইনে প্রেমিক বলেছেন যে যদি তার প্রেমিকা অন্য কাউকে ভালবাসে, তাহলে সে তার জন্য সুখ কামনা করবে। এমনকি যদি তার এতে দুঃখ হয়।

যদি আর কারে ভালোবাস, যদি আর ফিরে নাহি আস,

তবে, তুমি যাহা চাও, তাই যেন পাও, আমি যত দুখ পাই গো।

গানটি প্রেমের অমরতা এবং আত্মত্যাগের গান। এটি প্রেমিকের নিঃস্বার্থ ভালবাসার একটি অনন্য উদাহরণ।

গানটির ইতিহাস সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে জানা না গেলেও, এটি রবীন্দ্রনাথের নিজের জীবনের একটি প্রেমের অভিজ্ঞতা থেকে অনুপ্রাণিত বলে মনে করা হয়। গানটিতে প্রেমিকের গভীর ভালবাসা এবং আত্মত্যাগের মনোভাব প্রকাশিত হয়েছে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

গানটি প্রকাশের পর থেকেই এটি বাংলা ভাষার অন্যতম জনপ্রিয় প্রেমের গান হয়ে উঠেছে। এটি বিভিন্ন শিল্পী দ্বারা বিভিন্ন সময়ে গেয়েছেন। গানটি বিভিন্ন টেলিভিশন এবং চলচ্চিত্রেও ব্যবহার করা হয়েছে।

আমারো পরানো যাহা চায় রিংটোন

আমারো পরানো যাহা চায় গানটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা একটি বিখ্যাত প্রেমের গান। এটি মায়ার খেলা কাব্যগ্রন্থের অন্তর্ভুক্ত। গানটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯১৩ সালে।

গানটিতে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন যে তার প্রেমিকা তার জীবনের সবকিছু। তিনি তার ছাড়া আর কিছুই চান না। তিনি তার জন্য সুখী হতে চান, এমনকি যদি সে অন্য কাউকে ভালবাসে। আমারো পরানো যাহা চায় লিরিক্স

গানটি একটি আবেগপ্রবণ গান যেখানে প্রেমিক তার প্রেমিকার প্রতি তার গভীর ভালবাসা প্রকাশ করে। গানটি প্রেমের অমরতা এবং আত্মত্যাগের গান।

গানটি বিভিন্ন শিল্পী দ্বারা বিভিন্ন সময়ে গেয়েছেন। এটি বিভিন্ন টেলিভিশন এবং চলচ্চিত্রেও ব্যবহার করা হয়েছে।

গানটি একটি জনপ্রিয় রিংটোন হতে পারে। এটি একটি সুন্দর এবং আবেগপ্রবণ গান যা প্রেমিকের গভীর ভালবাসা প্রকাশ করে।

আপনি যদি আমারো পরানো যাহা চায় গানটি আপনার রিংটোন হিসাবে ব্যবহার করতে চান, তাহলে আপনি নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে পারেন:

  1. আপনার মোবাইল ফোনের সেটিংসে যান।
  2. “সাউন্ডস এবং ভাইব্রেশন” নির্বাচন করুন।
  3. “রিংটোন” নির্বাচন করুন।
  4. “নতুন রিংটোন নির্বাচন করুন” নির্বাচন করুন।
  5. আপনার মোবাইল ফোনে সংরক্ষিত আমারো পরানো যাহা চায় গানটি নির্বাচন করুন।
  6. “সেট করুন” নির্বাচন করুন।

আপনি যদি আপনার মোবাইল ফোনে আমারো পরানো যাহা চায় গানটি সংরক্ষণ না করে থাকেন, তাহলে আপনি নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে পারেন:

  1. আপনার মোবাইল ফোনে একটি ব্রাউজার খুলুন।
  2. “আমারো পরানো যাহা চায়” গানটি অনুসন্ধান করুন।
  3. গানটি ডাউনলোড করুন।
  4. গানটি আপনার মোবাইল ফোনে সংরক্ষণ করুন।
  5. উপরের পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করে গানটি আপনার রিংটোন হিসাবে সেট করুন।

আমারো পরানো যাহা চায় রিংটোন আপনার মোবাইল ফোনে একটি সুন্দর এবং আবেগপ্রবণ টোন যোগ করবে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top